প্রথম ওয়ানডে জয়ে বাংলাদেশের টার্গেট ৩১৫

কুশল পেরেরার সেঞ্চুরি এবং অন্যান্যদের ছোট ছোট অবদানের উপর ভর করে বাংলাদেশকে বিশাল লক্ষ্য দিয়েছে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা। শুক্রবার তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ৩১৪ রান সংগ্রহ করেছে লঙ্কানরা। সুতরাং, জিততে হলে বাংলাদেশকে করতে হবে ৩১৫ রান।

দলের পক্ষে সেঞ্চুরি করেন কুশল পেরেরা। ১১১ রান করে আউট হন তিনি। ওয়ানডেতে এটি তার পঞ্চম সেঞ্চুরি। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৮ রান করেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে শফিউল ইসলাম ৩টি, মেহেদী হাসান মিরাজ ১টি, সৌম্য সরকার ১টি, রুবেল হোসেন ১টি ও মোস্তাফিজুর রহমান ২টি করে উইকেট শিকার করেন।

কলম্বোর আর. প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কা ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ১০ রানে প্রথম উইকেট হারায়। ইনিংসের তৃতীয় ওভারে শফিউল ইসলামের বলে স্লিপে সৌম্য সরকারের ধরা পড়েন অভিশকা ফার্নান্দো। ১৩ বলে ৭ রান করেন তিনি। এরপর ৯৭ রানের জুটি গড়েন কুশল পেরেরা ও দিমুথ করুণারত্নে। ১৫তম ওভারে মিরাজের বলে মোস্তাফিজের হাতে ক্যাচ হন করুণারত্নে। ৩৭ বলে ৩৬ রান করেন তিনি।

করুণারত্নে ফেরার পর ১০০ রানের জুটি গড়েন কুশল পেরেরা ও কুশল মেন্ডিস। ওয়ানডাউনে নেমে শুরু থেকেই ঝড়ো ব্যাট করছিলেন কুশল পেরেরা। ৮২ বলে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের পঞ্চম সেঞ্চুরি তুলে নেন তিনি। কিন্তু সেঞ্চুরি করার পর বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। ৯৯ বলে ১১১ রান করে ফিরে যান তিনি। এই রান করার পথে তিনি ১৭টি চার ও একটি ছক্কা হাঁকান।

৩৩তম ওভারে সৌম্যর বলে সুইপ করতে গিয়ে শর্ট ফাইন লেগে মোস্তাফিজের হাতে ক্যাচ হন পেরেরা। পেরেরা ফেরার পরের ওভারেই ফিরে যান কুশল মেন্ডিস। রুবেল হোসেনের বলে উইকটেরক্ষকের হাতে ক্যাচ হয় তিনি। ৪৯ বলে ৪৩ রান করেন তিনি।

কুশল মেন্ডিস ফেরার পর ৬০ রানের পার্টানারশিপ করেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ ও লাহিরু থিরিমান্নে। দলীয় ২৭২ রানে ফিরে যান থিরিমান্নে। মোস্তাফিজের বলে সৌম্যর হাতে ধরা পড়েন তিনি। থিরিমান্নে ফেরার পরের ওভারেই থিসারা পেরেরাকে প্যাভিলিয়নের পথ দেখান শফিউল ইসলাম। এই ক্যাচটিও নেন সৌম্য। এরপর ৪৯তম ওভারে ম্যাথুজকে ফেরান মোস্তাফিজ। আর শেষ ওভারে ধনঞ্জয়ার উইকেটটি নেন শফিউল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

শ্রীলঙ্কা ইনিংস: ৩১৪/৮ (৫০ ওভার)

(অভিশকা ফার্নান্দো ৭, দিমুথ করুণারত্নে ৩৬, কুশল পেরেরা ১১১, কুশল মেন্ডিস ৪৩, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ ৪৮, লাহিরু থিরিমান্নে ২৫, থিসারা পেরেরা ২, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা ১৮, লাসিথ মালিঙ্গা ৬*, নুয়ান প্রদীপ ০*; শফিউল ইসলাম ৩/৬২, মেহেদী হাসান মিরাজ ১/৫৬, রুবেল হোসেন ১/৫৪, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ০/৪৫, মোস্তাফিজুর রহমান ২/৭৫, সৌম্য সরকার ১/১৭, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ০/৪)।

বিএম/এমআর