আবারও ভেঙে গেল এলআরবি

    আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুর পর থেকেই অশান্ত দেশের জনপ্রিয় ব্যান্ডদল এলআরবি। অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে একের পর এক নাটকীয় ঘটনার জন্ম দিচ্ছে ব্যান্ডদলটি। সবশেষ ব্যান্ডের সদস্য ছিল দুই জন। তারা হলেন প্রতিষ্ঠাতা সদস্য সাইদুল হাসান স্বপন ও ড্রামার রোমেল। এর আগে ব্যান্ডের চার সদস্যের মধ্যে মতপার্থক্যের কারণে এলআরবি ছাড়েন ম্যানেজার শামীম আহমেদ ও গিটারিস্ট মাসুদ।

    এবার নতুন খবর হল, দুই সদস্যদের এলআরবি ব্যান্ড থেকে অসদাচরণের অভিযোগ তুলে ড্রামার রোমেলকে বহিষ্কার করে এলআরবির নতুন চার সদস্যের লাইন আপ ঘোষণা করেছে প্রতিষ্ঠাতা সদস্য সাইদুল হাসান স্বপন।

    মঙ্গলবার (২৭ আগস্ট) রাতে এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে এমন তথ্য জানিয়েছে এলআরবির সদ্য সদস্য হওয়া পুষ্প ফেরদৌস। সেই স্ট্যাটাস থেকে জানা যায়,স্বপনের নেতৃত্বে এলআরবির নতুন লাইনআপে ভোকাল হিসেবে যোগ দিয়েছেন ওয়ারফেইজের সাবেক ভোকাল মিজান, গিটারে ত্রিকাল ব্যান্ডের গিটারিস্ট পুষ্প ফেরদৌস ও ড্রামসে যোগ দিয়েছেন অমিত।

    এদিকে আর এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে প্রতিষ্ঠাতা সদস্য স্বপন ড্রামার রোমেলকে বহিষ্কার করা প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, সম্প্রতি ‘কনসার্ট ফর নিলুফার’ নামের একটি অনুষ্ঠানে কোন প্রকার আলোচনা ছাড়াই এলআরবির ব্যানারে পারফর্ম করেছেন রোমেল। এ বিষয়ে তার সঙ্গে কথা বলতে গেলে তিনি অভদ্র আচরণ করেন।

    এছাড়া রোমেলকে বিরুদ্ধে স্বপন আরও অভিযোগ করে লিখেছেন, এলআরবি’র গানের ভিডিও কন্টেন্ট কোনো রকম অনুমতি (এলআরবি ও বাচ্চু ভাইয়ের পরিবার) ছাড়া বিদেশে গোপনে নিজের নামে একাউন্ট খুলে বিপুল পরিমান ডলার আত্মসাত করেছেন রোমেল, যা এখনও চলমান। এই চরম বিশ্বাসঘাতকতার কারণে রোমেলকে এলআরবি থেকে অপসারণ করতে বাধ্য হচ্ছি, আমি জানি বস বেঁচে থাকলে এটাই করতেন।

    সেই স্ট্যাটাসে স্বপন আরও দাবি করেন, তার অনুমতি ছাড়া এখন কেউ এলআরবির নাম ব্যবহার করতে পারবে না।

    লাভ রানস ব্লাইন্ড ব্যান্ড দলটি এলআরবি নামে পরিচিত। ১৯৯১ সালে চট্টগ্রামে আইয়ুব বাচ্চুর দ্বারা গঠিত হয়েছিল দেশের জনপ্রিয় এই সফল রক ব্যান্ডদলটি।

    বিএম/এমআর