চাঁদা না পেয়ে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা : আটক ৪

চট্টগ্রাম মেইল : চট্টগ্রামের বাকলিয়া কল্পলোক আবাসিক এলাকার এক ভবন মালিকের কাছ থেকে চাঁদা চেয়ে ব্যর্থ হলে ইয়াবা দিয়ে তাকে ফাঁসানোর চেষ্টা করে ৪ চাঁদাবাজ তরুণ। তবে পুলিশের বিছক্ষনতাই ভেস্তে যায় তাদের পরিকল্পনা।

কাগজে মোড়ানো চারপিস লাল ইয়াবা ট্যাবলেটসহ পুলিশের হাতেই ধরা পড়ে পরিকল্পনাকারী ৪ তরুণ। আজ বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত পৌনে ১টার সময় নগরীর বাকলিয়া থানার কল্পলোক আবাসিক এলাকায় ঘটনাটি ঘটে।

আটকৃতরা হলেন, কালামিয়া বাজারের মো. রহিমের ছেলে মো. বাপ্পী (১৯),  সৈয়দ শাহ রোডের আব্দুস শুক্কুরের ছেলে মোঃ নিশান (১৮), শাহ আমানত হাউজিং সোসাইটির রফিকুল্লার ছেলে সিদ্দিকুর রহমান (২০) ও বাকলিয়া থানা কালামিয়া বাজারের বাসিন্দা আহম্মদ নুরের ছেলে ইয়াসিন বিন ফয়সাল (১৮)।

পুলিশ জানায়, মো. নজরুল ইসলাম (৪৮) নামে এক ব্যাক্তি নগরীর কল্পলোক আবাসিকের বি-ব্লক বাড়ী নং- বি-১১৫ একটি বাড়ীর নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে আটক ৪ যুবক বাড়ি নির্মাণের জন্য মালিকের কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে আসছে। তাছাড়া চাঁদা না দিলে এলাকায় বসবাস করতে পারবেনা এমন হুমকিও দিয়েছেন তারা। এতেও নিরব ছিলো ভবন মালিক।

সর্বশেষ বুধবার রাতে পুলিশকে ফোন দিয়ে বাপ্পী জানায় ভবন মালিক নজরুলের বাসায় ইয়াবা আছে। তার দেয়া তথ্যমতে বাকলিয়া থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে নজরুলের বাসা তল্লাশী করে। ইয়াবা না পেয়ে ফিরে আসার সময় বাপ্পী ও সিদ্দিকুর রহমান কৌশলে ওই বাসায় প্রবেশের চেষ্টা করে। এতে সন্দেহ হয় পুলিশের। পরবর্তীতে দুজনের দেহ তল্লাশী করে বাপ্পীর হাতের মুঠোয় কাগজে মোড়ানো ৪পিস লাল ইয়াবা পাওয়া যায়।

পরে দুজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে দুজনই ইয়াবা দিয়ে ভবন মালিককে ফাঁসানোর পরিকল্পনার কথা পুলিশকে জানিয়ে দেন এবং অপর ২ পরিকল্পনাকারীর নাম ও ঠিকানা প্রকাশ করে। তাদের দেয়া তথ্যমতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে অপর দুই পরিকল্পনাকারী মো. নিশান (১৮) ও ইয়াসিন বিন ফয়সাল (১৮)কে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

বাকলিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আটকৃতদের বিরুদ্ধে মাদক ও চাঁদাবাজির নিয়মিত মামলা রুজু করে আজ বৃহস্পতিবার আদালতে প্রেরণ করা করার পর আসামি মো. বাপ্পী বিচারকের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

বিএম/রাজীব..