গোলাপি টেস্টে হাসিনা-মমতার বৈঠক নিয়ে আলোচনা তুঙ্গে

বাংলাদেশ মেইল: ইডেন গার্ডেনসে ঐতিহাসিক গোলাপি টেস্টের ফাঁকেই বৈঠকে মিলিত হবেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যনার্জি।

শুক্রবার সন্ধ্যা ছয়টায় দক্ষিণ কলকাতার তাজ বেঙ্গল হোটেলে বৈঠক করবেন দুই নেত্রী। সারাদিনে মোট তিনবার সাক্ষাৎ হবে শেখ হাসিনা-মমতার। ইডেনে টেস্ট ম্যাচের উদ্বোধন ছাড়াও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেও উপস্থিত থাকবেন তারা।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় একথা জানিয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বলেন ‘আগামীকাল ক্রিকেট খেলা আছে এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আসছেন। ইডেনে দুইটি অনুষ্ঠানে তার সাথে আমার দেখা হবে। এর মধ্যে দুপুরে ইডেনে ম্যাচের উদ্বোধনে এবং সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেও আমরা মিলিত হবো এবং তৃতীয়ত সন্ধ্যা ছয়টায় তাজ বেঙ্গল হোটেলে শেখ হাসিনার সাথে একটি সাক্ষাৎ রয়েছে।’

স্বাভাবিক ভাবেই ইডেনের টেস্ট ম্যাচের পাশাপাশি কূটনৈতিক মহলের নজর থাকবে শেখ হাসিনা-মমতার বৈঠকের দিকেও।ইতিমধ্যেই কলকাতার শহীদ মিনার থেকে শুরু করে মোহর কুঞ্জ, বহুতল ভবন গোলাপি আভায় সেজে উঠেছে। কলকাতার টাটা সেন্টারে থ্রিডি এফেক্টে ফুটে উঠেছে ইডেনের নানা ছবি। ইডেনের মধ্যেই উড়ছে গোলাপি বেলুন। ইডেনের ক্লাব হাউজের মূল ফটকে থাকবে গোলাপি ম্যাসকট। ইলেকট্রনিক স্কোরবোর্ডেও গোলাপি ছোঁয়া। ইডেনের স্ট্যান্ডগুলিও গোলাপি রঙে সাজানো হয়েছে।

জানা গেছে, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে রওনা দেবেন সকাল ১০টায়। কলকাতায় পৌঁছাবেন ১০টা ২৫ মিনিটে। ইডেনে ১২টা ১০ মিনিটে শেখ হাসিনাকে অভ্যর্থনা জানাবেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী।

১২টা ২০ মিনিটে বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী মাঠে গোলাপি বল ও কয়েন হস্তান্তর করবেন ম্যাচ রেফারিকে। ১২টা ৫০ মিনিটে শেখ হাসিনা ও মমতা মুখার্জি আনুষ্ঠানিকভাবে ঘণ্টা বাজিয়ে খেলার উদ্বোধন ঘোষণা করবেন। প্রধানমন্ত্রী প্রথম সেশন মাঠে বসেই দেখবেন। মধ্যাহ্নভোজের পর সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন মমতা ব্যানার্জির সঙ্গে।