চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় অনেক আলোকিত মানুষের জন্ম দিয়েছে – তথ্যমন্ত্রী

বাংলাদেশ মেইল || নিজস্ব প্রতিবেদক :

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ৫৩ বছর অতিবাহিত করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের এলামনাই এসোসিয়েশন এধরণের আয়োজন পূর্বে কখনও করেনি। তবে এ আয়োজন অনেক আগেই হওয়া উচিত ছিল। কারণ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় অনেক আলোকিত মানুষের জন্ম দিয়েছে। তারা দেশে- বিদেশে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে আশীন হয়েছেন।
মন্ত্রী আজ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশন আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃত্বে এসব কথা বলেন।
অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে যারা মারা গেছে তাদের স্বরণে শোক প্রস্তাব করেন এসোসিয়েশনের যুগ্ম্ম সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান। এসময় প্রাক্তন ভিসি প্রফেসর আব্দুল মান্নান, প্রফেসর বদিউল আলম, প্রফেসর আলাউদ্দিন আলম, প্রফেসর আনোয়ারুল আজিম আবিদ এবং প্রফেসর ড. শিরীন আক্তারকে সম্মাননা ক্রেস্ট দেওয়া হয়।
এসময় সাবেক চীফ হুইপ আবদুস শহীদ, সাবেক মূখ্য সচিব আবদুল করিম, বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব আহমেদ কায়কাউস, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিপি মাজাহারুল হক শাহ ও চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মো.মাহাবুবুল আলম বক্তব্য রাখেন।
বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের স্মৃৃৃতিচারন করতে গিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বহু বছর এ চেনা মুখগুলো দেখা যায় নাই। আজ দেখে ভালো লাগছে। শাটল ট্রেনে গলা ছেড়ে গান গাওয়ার স্বৃতি আজও আমার মনে পড়ে। মনে চায় আবার বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে সেদিনগুলোতে ফিরে যাই। তবে ভবিষ্যতে এধরণের আয়োজন বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসেই হবে বলে মন্তব্য করেন তথ্যমন্ত্রী।
দুই দিনব্যাপি অনুষ্ঠানের আজ প্রথম দিনে রয়েছে আলোচনা সভা ও  সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এতে অংশ নিবেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের নবীণ ও প্রবীণ শিক্ষার্থীগণ। এ উদ্দেশ্য চবির শাটল ও ঝুপড়ী গানের ঐতিহ্যকে পুনর্জীবিত করা। এছাড়া অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় দিনে রয়েছে,স্বল্পদৈর্ঘ চলচ্চিত্র প্রতিযোগিতা। যাতে অংশগ্রহণ করতে পারবেন বাংলাদেশের সকল নির্মাতা।