‘হিউম্যান মিল্ক ব্যাংক’ স্থাপন বন্ধ করতে আইনি নোটিশ

হিউম্যান মিল্ক ব্যাংক’

মাতৃদুগ্ধ সংরক্ষণে ‘মিল্ক ব্যাংক’ স্থাপনের বিরোধিতা করে এবং এ ব্যাপারে যথাযথ শর্তারোপ চেয়ে সংশ্লিষ্টদেও আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। আজ মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টেও আইনজীবী মাহমুদুল হাসান এই নোটিস পাঠান।

ধর্ম মন্ত্রণালয়, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, শিশু-মাতৃস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট (আইসিএমএইচ), নবজাতক পরিচর্যা কেন্দ্র (স্কানো), নবজাতক আইসিইউ (এনআইসিইউ) এবং ঢাকা জেলা প্রশাসককে এই নোটিস দেওয়া হয়।

আইনজীবীর পাঠানো নোটিসে ‘মিল্ক ব্যাংক’ ইস্যুতে আইনগত ও ধর্মীয় সমস্যা রয়েছে বলে উল্লেখ কওে বলা হয়, ইসলাম ধর্মমতে, কোনো শিশু কোনো মহিলার দুধ পান করলে ওই মহিলা ওই শিশুর দুধমাতা হয়ে যায়। দুধপানকারী সন্তানরা ওই মহিলার সন্তান হিসেবে গন্য হয়। ফলশ্রুতিতে বাংলাদেশে উক্ত ‘মিল্ক ব্যাংক’ স্থাপনের ফলে একই মায়ের দুধ পানের কারণে যারা দুধ পান করবে তারা প্রত্যেকে বাইবোন হয়ে যাবে। ভবিষ্যতে ভাইবোনের মধ্যে বিয়ে হওয়ার আশঙ্কা থাকে। কিন্তু ইসলামে ভাইবোনদের মধ্যে বিয়ে নিষিদ্ধ।

নোটিসে বলা হয়, তাই মুসলিম ব্যক্তিগত আইন, ১৯৩৭ এর সরাসরি লঙ্ঘন হবে মিল্ক ব্যাংক।

সম্প্রতি বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবর থেকে জানা গেছে, হিউম্যান মিল্ক ব্যাংক যাত্রা শুরু করেছেন। ‘হিউম্যান মিল্ক ব্যাংক’ ঢাকা জেলার মাতুয়াইলের শিশু-মাতৃস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের (আইসিএমএইচ) নবজাতক পরিচর্যা কেন্দ্র (স্ক্যানো) এবং নবজাতক আইসিইউয়ের (এনআইসিইউ) নিজস্ব উদ্যোগে গত ১ ডিসেম্বর থেকে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। অবশ্য এটি এখনো উদ্বোধন করা হয়নি।

নোটিসে বলা হয়েছে, এটি বন্ধ করা হোক। অন্যথায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।