২৪ ঘন্টার ব্যবধানে সীতাকুণ্ডে দুই করোনা রোগীর মৃত্যু

নাইম আহমেদ,বাংলাদেশ  মেইল ::

সীতাকুণ্ড উপজেলায় করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯ এ) আক্রান্ত হয়ে আরো একজনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। নিহতের নাম রাকিবুল ইসলাম (২৫)। তিনি  সীতাকুণ্ড উপজেলার ১নং সৈয়দপুর ইউনিয়নের মহানগর গ্রামের আমির সিদ্দিকীর পুত্র।

আজ মঙ্গলবার (২৬ মে) সকাল সাড়ে ১১ ঘটিকায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করে মৃত রাকিবুল ইসলামের বড় ভাই সাইফুল ইসলাম মুঠোফোনে এ প্রতিবেদককে জানান, তার ছোট ভাই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে  ১৭ মে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়। মঙ্গলবার  সকালে তার মৃত্যু হয়।

জানা য়ায় দীর্ঘ দিন ঘরে তিনি কিডনি রোগে ভুগছিলেন। তিনি আরো বলেন, আমার বাবার সরকারী চাকরীর সুবাধে দীর্ঘদিন আমরা স্বপরিবারে কাপ্তাই বসবাস করছি। গ্রামের বাড়ি সীতাকুণ্ডে তেমন আসা হয়না। তবে আমার ছোট ভাইয়ের দাফন নিজ গ্রামেই করবো। এর আগে গত রোববার সকালে উপজেলার সলিমপুর ইউনিয়নে ৭০ বছর বয়সী এক নারীর করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়। এ নিয়ে এক সপ্তাহে সীতাকুণ্ডে দুইজনের মৃত্যু হলো। বিষয়টি নিশ্চিত করে সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিল্টন রায় বলেন, চমেক হাসপাতালে এক যুবক করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু বরণ করেছে তার বাড়ি সীতাকুণ্ডে। যথাযথ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তাকে নিজ গ্রামে দাফন করা হবে।

সর্বশেষ তথ্য মতে সীতাকুণ্ডে মোট করোনা আক্রান্ত ৭২ জন, সুস্থ হয়েছেন ১৬জন, প্রাতিষ্ঠানিক হোম কোয়ারেন্টাইনে ১৯৫৮ জন, আইসোলেশনে আছে ৫৬ জন। বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছেন ১২ জন। এছাড়া ভাটিয়ারিতে অবস্থিত বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমিতে দুজন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। গত পরশু কুমিরা হাইওয়ে থানার তিন পুলিশ সদস্যের রিপোর্ট পজেটিভ আসে। সীতাকুণ্ডের এক সাংবাদিক ও তার স্ত্রী করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। যার মধ্যে এক জন সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন। প্রতিদিন নতুন নতুন করোনা রোগী শনাক্ত হচ্ছে। কিন্তু স্বস্তির খবর গত কাল নতুন কোন রোগী শনাক্ত হয়নি। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সীতাকুণ্ড স্বাস্থ্য কর্মকর্তা নুর উদ্দিন রাশেদ।