করোনাকালে প্রান গেলো দেশের ৪৭ জন মেধাবী চিকিৎসকের

বাংলাদেশ মেইল :: 

দেশজুড়ে করোনা দূর্যোগে রোগীদের চিকিৎসা দিতে গিয়ে প্রান হারিয়েছেন দেশের ৪৭ জন মেধাবী চিকিৎসক। দেশে গত ৮ই মার্চ প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হবার পর থেকে সময়ের সাথে বেড়েছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যাও৷ আক্রান্ত ও করোনা উপসর্গ নিয়ে রোগীরা ভীড় করছে দেশের সরকারি বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলোতে।

রোগী ভীড় সামলাতে হিমসিম খাচ্ছে সম্মুখ সারির করোনা যোদ্ধা চিকিৎসক-নার্সরা। দেশে  চিকিৎসকদের মৃত্যু হার ৩ দশমিক শূন্য ৭ ভাগ বলে জানিয়েছে চিকিৎসকদের সংগঠন ফাউন্ডেশন ফর ডক্টরস সেফটি রাইটস অ্যান্ড রেসপনসিবিলিটি-এফডিএসআর। করোনা যুদ্ধে শহীদ চিকিৎসকদের জন্য বিএসএমএমইউসহ সকল মেডিকেলে একটি স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণের দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

এপ্রিল মাসে ১ জন, মে মাসে ১৩জন, জুন মাসে (২০ জুন পর্যন্ত) ৩৩ জন চিকিৎসক মারা যান। এ ছাড়া আরো ৫ জন চিকিৎসকের উপসর্গ থাকলেও তাদের নমুনা সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি।

বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন-বিএমএর চট্টগ্রাম শাখার সেক্রেটারি ডা. মো. ফয়সাল ইকবাল চৌধুরী জানান , রোগীদের চিকিৎসা দিতে গিয়ে প্রতিদিনই  ডাক্তাররা করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সারা দেশে ৪৮ জনের মতো চিকিৎসক মারা গেছেন। এর মধ্যে চট্টগ্রামে ৫জন করোনাভাইরাসে ও ৩জন উপসর্গ নিয়ে মারা যায়। এ পর্যন্ত চট্টগ্রামে ২০৮জন চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত হয়েছে।

ফয়সাল ইকবাল আরো জানান, নগরীর ম্যাক্স হাসপাতালে ১৭ জন করোনা আক্রান্ত চিকিৎসক বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এর মধ্যে ম্যাক্সে কর্মরত ডাক্তারও রয়েছে। এছাড়া ন্যাশনাল হসপিটালের বেশ কয়েকজন চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত। যেহেতু চিকিৎসা সেবা থেকে চিকিৎসকরা দুরে থাকতে পারবে না, তাই নিজেদের সর্বোচ্চ দিয়ে রোগীদের সেবা দিতে হবে৷