দশ মিনিটেই হলি ক্রিসেন্টে পৌছালো ওয়াসিমের এম্বুলেন্স সার্ভিস

বাংলাদেশ মেইল ::

চট্টগ্রামে করোনা পজিটিভ  রোগীদের পাশাপাশি সব ধরনের রোগে আক্রান্ত রোগীদের প্রয়োজনের সময় এম্বুলেন্স ও অক্সিজেন সিলিন্ডার যোগাড় -সত্যিই কস্টসাধ্য বিষয়৷ করোনা ভীতির কারনে সাধারন যে রোগীই যথাসময়ে এম্বুলেন্স যোগাড় করতে রীতিমতো হিমসিম খাচ্ছে ।

করোনা দূর্যোগের এমন পরিস্থিতিতে  সাধারন মানুষের পাশে দাঁড়ানো রাজনীতিবিদদের  গল্পো  এ যুদ্ধ জয়ের অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে।

একটি বেসরকারি টেলিভিশনে কর্মরত এক সাংবাদিক জানালেন এমনই এক তরুনের মানবিক কার্যক্রমের কথা। হাটহাজারীর মনিয়া পুকুর এলাকার বাসিন্দা মীর ফিরোজ চিকিৎসাধীন রয়েছে নগরীর হলি ক্রিসেন্ট হাসপাতালে। সপ্তাহের বেশি সময় ধরে আইসিইউতে থাকা এ রোগীকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানালেন বাইরে নিয়ে জরুরী কিছু পরীক্ষা করাতে হবে। গুরুতর অসুস্থ এ রোগীর জন্য অক্সিজেনসহ এম্বুলেন্স খুঁজে হয়রান রোগীর স্বজনরা। কোভিট রোগী হবার কারনে কোন এম্বুলেন্স এ রোগীকে টেস্ট করানোর জন্য হলিক্রিসেন্ট থেকে বের করতে রাজি হচ্ছে না।

এমন সময় স্থানীয় কাউন্সিলর পদপ্রার্থী সাবেক ছাত্রনেতা ওয়াসিম উদ্দিন চৌধুরীকে বিষয়টি জানান ঐ সাংবাদিক। দশ মিনিটের মধ্যেই হলি ক্রিসেন্ট হাসপাতালের গেটে এম্বুলেন্স নিয়ে পৌছে যায় ওয়াসিম উদ্দিন চৌধুরী’র স্বেচ্ছাসেবকরা। শ্বাসকষ্টের এই রোগীর জন্য অক্সিজেন সিলিন্ডারসহ এম্বুলেন্স সরবরাহ করেন তারা।

পরে রোগীকে একটি ডাইগোনস্টিক সেন্টারে নিয়ে বিভিন্ন পরীক্ষার নমুনা জমা দেবার ব্যবস্থা করে তারা।  পুনরায় রোগীকে হলি ক্রিসেন্ট  হাসপাতালে নামিয়ে দেয়া হয় একই এম্বুলেন্সে করে।

জানতে চাইলে ১৩ নং পাহাড়তলী ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী ওয়াসিম উদ্দিন জানান,  ‘ দলের কর্মিরা দুটি এম্বুলেন্সের মাধ্যমে সার্বক্ষণিক সেবা দিচ্ছেন স্থানীয়দের। প্রয়োজনে অক্সিজেন সরবরাহ করা হচ্ছে রোগীদের। দলের স্বেচ্ছাসেবকরা এই কাজ করছেন কোন ধরনের প্রচারনা ছাড়া, নিরবে। ‘

তিনি বলেন,  বৈশ্বিক মহামারী করোনায় সারা বিশ্ব বিপর্যস্ত। এমন দূর্যোগে চট্টগ্রামের মানুষের পাশে দাঁড়ানোর তাড়না থেকে নিয়েছি নানা উদ্দ্যেগ। রাজনীতির মুল লক্ষ্যই আসলে মানুষের জন্য কাজ করা৷ করোনার মতো দূর্যোগে তাই কোন মানবিক রাজনীতিবিদ ঘরে বসে থাকতে পারে না।