করোনায় মৃত্যু হলো দেশের প্রথম কোন বিচারকের

বাংলাদেশ মেইল ::  

করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশে প্রথম একজন বিচারকের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার মারা যাওয়া এই বিচারকের নাম ফেরদৌস আহমেদ। লালমনিহাটের জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক ছিলেন।

লালমনিরহাট জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের বিচারক মো. ফেরদৌস আহমেদের (৫৮) শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয় ১৫ জুন । তিনি ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের (সিএমএইচ) নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসা নিচ্ছিলেন । করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর তাকে প্লাজমাও দেওয়া হচ্ছিল।

আইন মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. রেজাউল করিম জানিয়েছেন, আগামীকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় জামালপুরে শহরে জানাজার পর পারিবারিকভাবে সেখানেই দাফন করা হবে বিচারক ফেরদৌসকে।

বিচারকের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

প্রধান বিচারপতি এক শোক বার্তায় বলেন, ‘ফেরদৌস আহমেদ ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে আদালতে বিচারকাজ পরিচালনা এবং দায়িত্ব পালনের সময় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘তিনি করোনাভাইরাস সৃষ্ট মহামারীর সময়েও জনগণের সাংবিধানিক অধিকার এবং ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় নিরন্তর কাজ করে গেছেন। মহামারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ফেরদৌস আহমেদ একজন অকুতোভয় সৈনিক ছিলেন। ১৯৮৪ সালে বিচার বিভাগে মুন্সেফ (সহকারী জজ) হিসেবে যোগদান করেন ফেরদৌস আহমেদ।’

এরপর দীর্ঘ ৩৬ বছর নিষ্ঠার সঙ্গে বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন বলে বলা হয়েছে শোক বার্তায়।

প্রসঙ্গত, ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে বিচারকাজ পরিচালনা ও দায়িত্ব পালনের মধ্যেও সারা দেশে মঙ্গলবার নাগাদ নিম্ন আদালতের ২৬ জন বিচারক কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়েছেন।

এ ছাড়া সর্বোচ্চ আদালতের ২৬ এবং নিম্ন আদালতের ৭১ জনসহ মোট ৯৭ জন আদালত কর্মচারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।