চীনকে পাল্টা জবাব দিতে সীমান্তে আরও সেনা মোতায়েন ভারতের

বাংলাদেশ মেইল ::  

সীমান্ত লাগোয়া অংশে চীন সামরিক অবকাঠামো নির্মাণ অব্যাহত রেখেছে। এমন পরিস্থিতিতে বিরোধপূর্ণ এলাকায় চীনকে জবাব দিতে আরও অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করেছে ভারত। প্রতিবেশী দেশ দুটির মধ্যে ৩ হাজার ৪৮৮ কিলোমিটার ডি-ফ্যাক্টো সীমান্ত রয়েছে।

বৃহস্পতিবার ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রকৃত সীমান্ত নিয়ন্ত্রণ এলাকায় শক্তি বাড়াতে এমন পদক্ষেপ নিয়েছে দিল্লি। বলা হচ্ছে, ওই অঞ্চলটিতে শুধু চীনা সেনাবাহিনী নয়, তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে তিব্বত সীমান্ত পুলিশ। তারা লোকজন ও অবকাঠামো নির্মাণের বিভিন্ন উপাদান নিয়ে অপেক্ষা করছে।

সরকারি এক কর্মকর্তা বলেন, এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে আমরা লাদাখে কিছু সেনা সদস্য পাঠিয়েছি এবং এখন আমরা সংখ্যা বৃদ্ধি করছি।

তার মতে, সবগুলো টহল পয়েন্টে সেনাবাহিনীকে সহায়তা করার জন্য প্লাটুনের পরিবর্তে একটি কোম্পানি স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। এক প্লাটুনে সাধারণত ৩০ জন জওয়ান থাকে, তবে একটি কোম্পানিতে প্রায় ১০০ জওয়ান রয়েছে।

এর আগে ১৫ জুন লাদাখের গালওয়ান উপত্যাকায় চীন-ভারতের সেনা সদস্যদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ২০ ভারতীয় সেনা নিহত হন। তবে চীনের পক্ষ থেকে এক কমান্ডার নিহতের কথা স্বীকার করা হয়। তবে চীন হতাহতের বিষয়টি বিস্তারিত জানায়নি।

এরপর থেকেই উত্তেজনা কমাতে কূটনৈতিক ও সামরিক পর্যায়ে বৈঠকে বসে দেশ দুটি। সর্বশেষ সোমবার কমান্ড পর্যায়ে ১১ ঘণ্টার বৈঠকে বসে চীন-ভারত। সেখানে সীমান্ত থেকে দুই দেশের সেনা সরিয়ে নেয়ার কথা হয়।

তবে, চীন পশ্চিম লাদাখে সংঘর্ষের স্থানে সেনা না সরিয়ে সামরিক অবকাঠামো নির্মাণ অব্যাহত রাখে। এ খবরে ভারত সীমান্তে যুদ্ধবিমান পাঠিয়ে পরিস্থিতির পর্যবেক্ষণ করে।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে বলা হয়, দেশটির সেনাবাহিনীর প্রধানও লাদাখ পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেছেন। সে মতে, কেন্দ্রকে রিপোর্ট দেবেন। এরপরই সীমান্তে পাল্টা সেনা মোতায়েনের ব্যবস্থা করে দিল্লি।