রোগীদের কুর্মিটোলা হাসপাতালে স্থানান্তর
রিজেন্ট হাসপাতাল ও রিজেন্ট গ্রুপের প্রধান কার্যালয় সিলগালা

বাংলাদেশ মেইল ::  

টেস্ট না করেই করোনাভাইরাস পরীক্ষার ভুয়া রিপোর্ট দেয়াসহ নানা অভিযোগে সিলগালা করে দেয়া হয়েছে ঢাকার উত্তরায় রিজেন্ট হাসপাতাল ও রিজেন্ট গ্রুপের প্রধান কার্যালয়।

বেলা চারটার দিকে রিজেন্ট গ্রুপের প্রধান কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে র‍্যাবের টীম সেখানেও অনুমোদনহীন টেস্ট কিট ও বেশ কিছু ভূয়া রিপোর্ট পেয়েছে জানিয়েছে র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম।

অভিযান শেষে সরোয়ার আলম বলেন “রিজেন্ট হাসপাতাল ও প্রধান কার্যালয় সিলগালা করে দিয়েছি। হেড অফিসে বসেই মিথ্যা রিপোর্ট তারা তৈরি করতো। হেড অফিসে ৫/৭ দিনের স্যাম্পল এক সাথে করে ফেলে দিতো। ভূয়া রিপোর্টও পেয়েছি। অনুমোদনহীন র‍্যাপিড কিট আমরা পেয়েছি”।

অভিযান শুরুর আগেই সরোয়ার আলম গণমাধ্যমকে জানান  রিজেন্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীদের কুর্মিটোলা হাসপাতালে স্থানান্তর করা  হয়েছে।

তিনি জানান রিজেন্ট হাসপাতাল ও গ্রুপের মালিক ও এমডি সহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা হবে এবং এর মধ্যে আট জনকে আটক করা হয়েছে।

এর আগে সোমবার রিজেন্ট হাসপাতালে অভিযানের পর সরোয়ার আলম বলেছিলেন, “এসব অনিয়মের সাথে হাসপাতালটির চেয়ারম্যানই জড়িত এবং তিনি নিজেই এসব ডিল করেছেন। ”

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা নিয়ে এটি দ্বিতীয় কোনো প্রতিষ্ঠান যার বিরুদ্ধে মামলা হলো।

তবে রিজেন্ট হাসপাতালের মালিককে আটক না করা গেলেও সোমবারই হাসপাতালটির আটজন কর্মকর্তাকে আটক করেছে র‍্যাব।

৫০ শয্যার এই হাসপাতালটিকে স্বাস্থ্য অধিদফতর অনুমোদন দিয়েছিলো ২০১৩ সালের ডিসেম্বরে।পরে ২০১৭ সালে মিরপুরেও হাসপাতালটির আরেকটি শাখা খুলে তার অনুমোদন নেয়া হয়।

যদিও এসব হাসপাতালের লাইসেন্সের মেয়াদ একবার উত্তীর্ণ হওয়ার পর আর নবায়ন করেনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

গত ৮ই মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের পর যখন কোনো হাসপাতাল করোনা রোগীদের চিকিৎসা দিতে রাজী হচ্ছিলোনা তেমন প্রেক্ষিতে রিজেন্ট সহ তিনটি হাসপাতালের সাথে চুক্তি করে স্বাস্থ্য বিভাগ।