করোনা নয় না খেয়ে মরবে বিশ্বের বেশি সংখ্যক মানুষ – অক্সফাম

বাংলাদেশ মেইল :: 

করোনার আতঙ্কে কাঁপছে বিশ্ব। কিন্তু দারিদ্র এবং ক্ষুধা তার থেকে ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। মহামারী রুখতে বিভিন্ন পদক্ষেপ বিশ্বের লক্ষ লক্ষ মানুষকে তীব্র দারিদ্রের মুখে ঠেলে দিয়েছে বলে সতর্ক করল আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা অক্সফাম (Oxfam)। এখনই বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে না দেখা হলে মারণ ভাইরাসের থেকে বেশি মানুষ অনাহারে প্রাণ হারাবেন বলে আশঙ্কা করেছে এই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাটি।

ভাইরাস সংক্রমণ রুখতে দেশে দেশে সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। জারি হয়েছে কারফিউ। এ ছাড়া জনগণের চলাচলের উপরেও জারি হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। ফলে এমনতিতেই দুর্বল দেশগুলিতে খাদ্য সরবরাহ ব্যহত হচ্ছে। টান পড়েছে সাধারণ মানুষের রোজগারে। হিংসা বিদীর্ন ইয়েমেনে ইতোমধ্যে মানবিক সংকট তীব্রতর আকার নিয়েছে। সে দেশের দুই-তৃতীয়াংশ মানুষ চরম দারিদ্রের মধ্যে বসবাস করছেন। কখনও আধপেটা খেয়ে, কখনও আবার না খেয়ে দিন কাটছে তাঁদের। এর মধ্যে আফগানিস্তানের পরিস্থিতিও ক্রমে খারাপের দিকে যাচ্ছে। সে দেশের আরও অন্তত ১০ লক্ষ মানুষ দুর্ভিক্ষের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে বলে Oxfam তার সাম্প্রতিকতম রিপোর্টে জানিয়েছে। উল্লেখ্য, গত বছর সেপ্টেম্বরে আফগানিস্তানের ২৫ লক্ষ মানুষ দুর্ভিক্ষের কবলে ছিলেন। গত মে মাসে সেই সংখ্যা এক ধাক্কায় বেড়ে হয়েছে ৩৫ লক্ষ।
আফগানিস্তানের বহু মানুষ কাজের সন্ধানে প্রতিবেশী দেশ ইরানে যান। কিন্তু করোনার কারণে সীমান্ত বন্ধ থাকায় এবং ইরানের অর্থনীতিতে স্থবিরতা দেখা দেওয়ায় তার নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে রেমিট্যান্সে। আর এই জোড়া ফলায় গত কয়েক মাসে হিংসা বিদীর্ণ আফগানিস্তানের বিপুল সংখ্যক মানুষ ক্রমশ দারিদ্রের কবলে পড়ছেন বলে তাদের সাম্প্রতিকতম রিপোর্টে জানিয়েছে এই আন্তর্জাতিক দাতব্য সংগঠনটি।
গত এপ্রিলে প্রতিদিন বিশ্বে গড়ে ১০,০০০ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে মারণ করোনাভাইরাস। কিন্তু করোনা উদ্ভূত সংকটের জেরে প্রতিদিন ১২ হাজার মানুষের প্রাণ যেতে পারে অক্সফামের রিপোর্টে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে। আফগানিস্তান এবং ইয়য়েমেন ছাড়াও গণপ্রজাতন্ত্রী কঙ্গো, ভেনেজুয়েলা, পশ্চিম আফ্রিকার সাহেল, ইথিওপিয়া, সুদান, দক্ষিণ সুদান, সিরিয়া এবং হাইতির মতো দেশ বর্তমানে চূড়ান্ত দারিদ্রের হটস্পটে পরিণত হয়েছে বলে অক্সফাম জানিয়েছে।