ভুয়া ডিগ্রি, জাল সনদের অভিযোগে ৩ পাকিস্তানি ক্রিকেটারকে নোটিশ!

বাংলাদেশ মেইল::

পাকিস্তানে ক্রিকেট থাকবে আর কেলেঙ্কারি থাকবে না এমনটা হতেই পারে না। দুর্নীতি আর পাকিস্তানিরা যেন হাত ধরাধরি করে চলে। ক্রিকেট দুনিয়ায় যত বড় বড় কেলেঙ্কারির ঘটনা রয়েছে, তার অধিকাংশের সঙ্গেই জড়িয়ে পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের নাম। এবার দেশটির সাবেক তিন ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে ভুয়া শিক্ষাগত সনদ, ভুয়া নাম এবং ভুয়া বয়স দেখানোর অভিযোগ উঠেছে। ইতোমধ্যে ওই তিন ক্রিকেটারকে কারণ দর্শানোর নোটিশও দেওয়া হয়েছে।

পাকিস্তানের গণমাধ্যম জানিয়েছে, এই তিন সাবেক ক্রিকেটার হলেন জাহিদ আহমেদ, আজিম হাফিজ এবং ফয়সাল ইকবাল। এদের মধ্যে ফয়সাল ইকবাল আবার পাকিস্তান কিংবদন্তি জাভেদ মিয়াঁদাদের প্রতিবেশি ও আত্মীয়। এই তিনজনই কোনো না কোনো সময় পাকিস্তান জাতীয় দলের হয়ে খেলেছিলেন। তাদেরকে নোটিশ জারি করেছে পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্স (পিআইএ)।

কারণ তিনজনই পাকিস্তানের এই সার্ভিসেস দলের হয়ে একসময় খেলেছেন।পিআইএ দলটিতে খেলার জন্য ক্রিকেট স্কিলের পাশাপাশি শিক্ষাগত যোগ্যতারও প্রয়োজন হয়। এতদিন পর তারা বের করতে পেরেছে যে ওই তিন ক্রিকেটারের ভুয়া তথ্যের খবর। ভুয়া শিক্ষাগত যোগ্যতা তথা ডিগ্রি প্রদর্শন এবং ভুল তথ্য দেয়ার কারণে সাবেক ক্রিকেটার জাহিদ আহমেদকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে। আজিম হাফিজকে কারণ

দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে ভুয়া ডিগ্রি প্রদর্শনের জন্য। আর জাভেদ মিয়াঁদাদের প্রতিবেশি ফয়সাল ইকবালকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে ভুয়া নাম এবং জন্মসাল পরিবর্তন করে দেয়ার জন্য।

অল-রাউন্ডার জাহিদ ইকবাল ১৯৮৭ সালে পাকিস্তানের হয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দুটি আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছিলেন।

পেস বোলার আজিম হাফিজ পাকিস্তানের হয়ে ১৯৮৩ থেকে ১৯৮৫ সালের মধ্যে খেলেছেন ১৮টি টেস্ট এবং ১৫টি ওয়ানডে। যথাক্রমে টেস্টে ৬৩টি এবং ওয়ানডেতে নিয়েছেন ১৫ উইকেট। অন্যদিকে ডানহাতি ব্যাটসম্যান ফয়সাল ইকবাল ২০০১ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত পাকিস্তানের হয়ে খেলেছেন ২৬ টেস্ট ও ১৮টি ওয়ানডে ম্যাচ। রান করেছেন যথাক্রমে ১১২৪ এবং ৩১৪।