করোনা পরীক্ষা নিয়ে জালিয়াতি,সারাদেশে সাতটি মামলা

বাংলাদেশ মেইল :: 

করোনা পরীক্ষা নিয়ে জালিয়াতির ঘটনায় সারাদেশে মোট সাতটি প্রতারণার মামলা হয়েছে। আর এসব ঘটনাকে কেন্দ্র করে অন্যান্য মামলা হয়েছে আরো ৬টি। গ্রেফতার করা হয়েছে ৬১ জনকে।
মামলা হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- জেকেজি হেলথ কেয়ার, রিজেন্ট গ্রুপ, পাবনার ঈশ্বরদীর রুপপুরের মেডিকেয়ার ক্লিনিক ও অবগ্যান ডায়াগনস্টিক সেন্টার। এছাড়া সাভারের গেন্ডা এলাকা থেকে দু’জন ও রাজধানীর মুগদা এলাকা থেকে পাঁচজনকে আটকের পর মামলা হয়েছে।

জেকেজি হেলথ কেয়ারের বিরুদ্ধে মোট মামলা হয় চারটি। এরমধ্যে করোনা টেস্ট নিয়ে প্রতারণার মামলা একটি। অন্য তিন মামলার মধ্যে একটি জিনিসপত্র আত্মসাতের ও দুটি ভাংচুরের মামলা। এসব ঘটনায় মোট ৩৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

অপরদিকে করোনা টেস্ট নিয়ে প্রতারণার ঘটনায় রিজেন্ট হাসপাতালের বিরুদ্ধে উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি মামলা হয়। এছাড়া রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদ করিমকে সাতক্ষীরা থেকে গ্রেফতারের সময় অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় সেখানে অস্ত্র আইনে একটি ও জাল টাকা উদ্ধারের ঘটনায় আরেকটি মামলা হয়।

অন্যদিকে রিজেন্ট গ্রুপের এমডি মাসুদ পারভেজের বিরুদ্ধে গাজীপুরের কাপাসিয়ায় ৫ লাখ টাকা নিয়ে প্রতারণার অভিযোগে একটি মামলা হয়। এসব ঘটনায় রিজেন্টের চেয়ারম্যান ও এমডিসহ ১২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গত ১৫ জুন করোনার জাল সার্টিফিকেট দেয়ার অপরাধে রাজধানী মুগদা এলাকা থেকে তিনজনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। এ ঘটনায় র‌্যাব মুগদা থানায় বাদী হয়ে একটি মামলা করে। এছাড়া করোনার জাল সার্টিফিকেটের সঙ্গে সম্পৃক্ততার অভিযোগে মুগদা জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ হাসপাতালে দায়িত্বরত এক আনসার সদস্যসহ দুইজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা করে মুগদা থানায়। এদের দুই জনকেও গ্রেফতার করেছে পুলিশ।