রয়টার্সের রিপোর্ট
সৌদি বাদশার অবস্থা স্থিতিশীল

বাংলাদেশ মেইল :: 

সৌদি আরবের বাদশা সালমানের অবস্থা স্থিতিশীল। সোমবার রাজধানী রিয়াদের একটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় ৮৪ বছর বয়সী বাদশাকে। রাষ্ট্রীয় মিডিয়ায় বলা হয়, পিত্তথলির প্রদাহের জন্য তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে মঙ্গলবার সৌদি আরবের তিনটি সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলেছে, বাদশার অবস্থা স্থিতিশীল। এতে বলা হয়, ২০১৫ সাল থেকে বিশ্বের সবচেয়ে বৃহৎ তেল রপ্তানিকারক ও যুক্তরাষ্ট্রের ঘনিষ্ঠ মিত্র দেশের ক্ষমতায় বাদশা সালমান। রয়েল কোর্টের এক বিবৃতিতে সোমবার বলা হয়, বাদশার মেডিকেল চেক চলছিল। ওদিকে যে তিনটি সূত্র রয়টার্সকে এ সম্পর্কে তথ্য দিয়েছে তার মধ্যে দু’জন কথা বলেছেন সোমবার। অন্যজন মঙ্গলবার জানিয়েছেন, বাদশা ভাল আছেন।

একজন সরকারি কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার অনুরোধ জানিয়ে বলেছেন, তিনি সোমবার বাদশার এক ছেলের সঙ্গে কথা বলেছেন। এ সময় তাকে শান্ত মনে হয়েছে। বাদশার স্বাস্থ্য নিয়ে কোনো পীড়া মনে হয়নি তার মধ্যে। ওদিকে রাষ্ট্রীয় মিডিয়ার খবরে বলা হয়েছে, বাদশা হাসপাতালে এ খবর পাওয়ার পর কুয়েত, বাহরাইন ও জর্ডানের নেতারা ফোনে বাদশা সালমানের সঙ্গে কথা বলেছেন। ওদিকে একটি কূটনৈতিক সূত্র বলেছেন, দেশের শাসন ক্ষমতার মূলে থাকা ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান ছিলেন লোহিত সাগরের পাড়ে নিওমে তার রাজপ্রাসাদে। সেখানে ইরাকি প্রতিনিধিদের সঙ্গে তার সাক্ষাৎ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তা বাতিল করে সোমবারই তিনি রিয়াদে উড়ে এসেছেন। কূটনৈতিক ওই সূত্র এবং সৌদি আরবের তৃতীয় একটি সূত্র নিশ্চিত করেছেন যে, তিনি রাজধানীতেই অবস্থান করছিলেন।

সর্বশেষ করোনা ভাইরাস মহামারি নিয়ে টেলিভিশনে ৫ মিনিটের জন্য প্রকাশ্যে গত ১৯ শে মার্চ বক্তব্য রেখেছিলেন বাদশা সালমান। এ ছাড়া তিনি মন্ত্রীপরিষদের সাপ্তাহিক অনলাইন বৈঠকে সভাপতিত্ব করছেন এমন ছবি ও ভিডিও প্রকাশ করেছে রাষ্ট্রীয় মিডিয়া। এসব মিটিংয়ে ক্রাউন প্রিন্স যোগ দিয়েছেন সে ছবিও প্রকাশ করেছে মিডিয়া।