শেখ হাসিনাকে শিনজো অ্যাবের ফোন, ২৮০০ কোটি টাকা সহায়তা দেবে জাপান

বাংলাদেশ মেইল :: 

জাপান ও বাংলাদেশের করোনা পরিস্থিতি, অর্থনৈতিক ও অবকাঠামোগত উন্নতি নিয়ে টেলিফোনে আলোচনা করেছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বুধবার (৫ আগস্ট) এই ফোনালাপ হয়।

নভেল করোনাভাইরাসের অভিঘাত মোকাবিলায় বাংলাদেশকে প্রায় ২৮০০ কোটি টাকা (৩৫ বিলিয়ন জাপানি ইয়েন) আর্থিক সহায়তা দেওয়ার কথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ফোনে জানান  জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে।

২৫ মিনিটের আলাপচারিতায় নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড ১৯) পরিস্থিতিসহ অন্যান্য বিষয় নিয়ে দুইজন ফোনে কথা বলেন।

জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে জানান, নভেল করোনাভাইরাসের অভিঘাত মোকাবিলায় বাংলাদেশকে ৩৫ বিলিয়ন ইয়েন সহযোগিতা করতে চাই জাপান। দেশটির সংসদে এ সংক্রান্ত সহযোগিতা প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে।

জবাবে প্রধানমন্ত্রী জাপানের জনগণ ও শিনজো অ্যাবের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।

সূত্র জানায়, দুই নেতা টেলিফোনে একে অপরের কুশলাদি বিনিময় করেন এবং দুই দেশের কোভিড-১৯ করোনাভাইরাস পরিস্থিতি সম্পর্কে একে অপরকে অবহিত করেন। বাংলাদেশের সরকার করোনাভাইরাস মোকাবিলায় এবং চিকিৎসার ক্ষেত্রে যে সব উদ্যোগ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সে সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেন।

একপর্যায়ে জাপান সরকার কর্তৃক বাংলাদেশকে কোভিড সংক্রমণ প্রতিরোধক ইকুইপমেন্টস- পিপিই, মাস্ক, গাউন, গগলস ইত্যাদি প্রদানের জন্য শিনজো অ্যাবে-কে শেখ হাসিনা ধন্যবাদ জানান।

মূল আলোচনায় দু’দেশের দ্বিপাক্ষিক অর্থনৈতিক সম্পর্ক আরও জোরদার করার বিষয়গুলো উঠে আসে। জাপান সরকারের অর্থায়নে চলমান প্রকল্পগুলোর অগ্রগতি সম্পর্কে দুনেতা আলোচনা করেন। বাংলাদেশের অবকাঠামো উন্নয়নে আরও জাপানি বিনিয়োগের জন্য শেখ হাসিনা জাপানের প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করেন।

তিনি চলমান রোহিঙ্গা সংকট সম্পর্কে শিনজো অ্যাবে-কে অবহিত করেন এবং এ সংকট উত্তরণে জাপান সরকারের সহযোগিতা কামনা করেন।

পরিশেষে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস মহামারির কারণে স্থগিত হওয়া ‘২০২০ গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক‘ ২০২১ সালে জাপানে যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।