সিনহা নিহতের ঘটনায় মামলা করতে আদালতে বোন শারমিন

বাংলাদেশ মেইল ::  

কক্সবাজারের টেকনাফের শামলাপুরে পুলিশের গুলিতে সাবেক সেনা কর্মকর্তা নিহতের ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে তার পরিবার। তার পরিবারের দাবি, সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খানকে হত্যার উদ্দেশ্যে পুলিশ গুলি করেছিল।

সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহা নিহতের ঘটনায় মামলা করতে বুধবার সকাল নয়টায় আদালতে হাজির হন বোন শারমিন ফেরদৌস।

সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খানের বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস গণমাধ্যমকে বলেন, ‘অন্য কোনো উদ্দেশ্য থাকলে অস্ত্র বের করে গুলি করতে মাত্র ৪ সেকেন্ড সময় লাগত আদনানের (মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান)। সেটা সে করেনি বরং তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি করা হয়েছে। আমরা হত্যা মামলা করব।’

তিনি আরো বলেন, বিচার পেতে হলে মামলা করতে হবে, সেজন্য আমরা গ্রাউন্ড ওয়ার্ক করছি। সকলের সাথে পরামর্শ আজকেই একটি হত্যা মামলা করা হবে।

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে আহ্বায়ক করে গঠিত ওই তদন্ত কমিটির সদস্যরা গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে কক্সবাজারের হিলডাউন সার্কিট হাউজে ছয় ঘণ্টার দীর্ঘ বৈঠক করেন।

মিজানুর রহমান পরে সাংবাদিকদের বলেন, বিস্তারিত আলাপ-আলোচনা করে তারা কর্ম-পরিকল্পনা নির্ধারণ করেছেন।

“ঘটনাস্থলসহ মাঠপর্যায়ে যেখানে যাওয়ার দরকার সেখানে আমরা যাব। প্রত্যক্ষদর্শীসহ যাদের দরকার তাদের সঙ্গে কথা বলবে তদন্তদল। মন্ত্রণালয়ের বেঁধে দেওয়া সাত কর্মদিবসের মধ্যেই প্রতিবেদন জমা দেওয়ার চেষ্টা করা হবে।”

উল্লেখ্য, গত ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে তিনি নিহত হন।