খানাখন্দে বেহাল এয়ারপোর্ট রোড সচল করতে সুজন বেঁধে দিলেন ৮ দিন !

বাংলাদেশ মেইলঃ খানাখন্দে বেহাল অবস্থায় পড়ে থাকা নগরীর অন্যতম প্রবেশদ্বার এয়ারপোর্ট রোডকে যান চলাচলে উপযোগী করতে ৮ দিন সময় বেঁধে দিয়েছেন খোরশেদ আলম সুজন। আগামী ২০ আগষ্টের মধ্যে উক্ত সড়কে কার্পেটিংসহ যাবতীয় কার্য সম্পন্ন করার এ কড়া আদেশ দেন চসিকের নব-নিযুক্ত এ প্রশাসক।

সুজন বলেন- এই চট্টগ্রাম আমাদের সকলের। চট্টগ্রামের উন্নয়নে আমরা যারা কাজ করছি তাদের মধ্যে সমন্বয় না হলে উন্নয়ন কার্যক্রমে কোন সফলতা আসবে না। যেহেতু জনদূর্ভোগ লাঘবে নগরীতে রাস্তা-ঘাট তৈরী করা হয় সেহেতু কাজের ক্ষেত্রে জনদূর্ভোগ যাতে বেড়ে না যায় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। একটি প্রতিষ্ঠিত নগরীতে এয়ারপোর্ট সড়ক হচ্ছে নগরের প্রবেশদ্বার। এখান থেকেই দেশী ও বিদেশী অতিথিরা চট্টগ্রাম সম্পর্কে ধারনা নিবে। তাই শুধুমাত্র সমন্বয়হীনতার অভাবে এই সড়কে জনদূর্ভোগ মেনে নেয়া যায় না। তিনি আজ অপরাহ্নে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ(সিডিএ) কর্তৃক বাস্তবায়িত উড়াল সেতু ও এয়ারপোর্ট সড়কের উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করতে গিয়ে এসব কথা বলেন। পরিদর্শনকালে চসিক প্রশাসক প্রত্যক্ষ করেন যে, ওয়াসার পাইপ লাইনের কারণে ড্রেইনের পানি নিস্কাশন ব্যাহত হচ্ছে। একইভাবে সড়কে বিভিন্ন খানা-খন্দকের কারনে গাড়ী চলাচল ও জনগণের দূর্ভোগ চরম পর্যায়ে। তাই তিনি আগামী ২০ তারিখের মধ্যে পানি চলাচলে বাঁধা সৃষ্টিকারী ওয়াসার পাইপ সমূহ ওয়াসাকে সরিয়ে নিতে এবং রাস্তায় যত গর্ত ও খানা-খন্দক আছে তাও ২০ তারিখের মধ্যে প্যাচওয়ার্কের মাধ্যমে সংস্কার করে রাস্তা কার্পেটিং এর সিদ্ধান্ত দেন। এসময় উভয় প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা তা পালনের প্রতিশ্রুতি দেন চসিক প্রশাসককে। এয়ারপোর্ট সড়কের এই চলমান উন্নয়নকাজে সমন্বয়ক প্রতিষ্ঠান হিসেবে কাজ করছে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন। তাই প্রশাসক চসিকের সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীদের এই বিষয়ে নজরদারী বাড়িয়ে ও কাজের গুনগতমান অক্ষুন্ন রাখতে নির্দেশনা দেন।

পরিদর্শনকালে চসিক প্রধান প্রকৌশলী লে.কর্ণেল সোহেল আহমদ, প্রশাসকের একান্ত সচিব মোহাম্মদ আবুল হাশেম, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক, তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আনোয়ার হোছাইন, নির্বাহী প্রকৌশলী অসীম বড়ুয়া, সহকারী প্রকৌশলী আশিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) অলক দাশ, সিডিএ ফ্লাইওভার প্রকল্প পরিচালক মোহাম্মদ মাহফুজ, ওয়াসার নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুর রউফ, রাজনীতিক হাজী হারুনুর রশীদ, হাজী মো. ইলিয়াছ, সাবেক কাউন্সিলর জিয়াউল হক সুমন, হাজী মো. হোসেন, মোরশেদ আলম, মো. শাহজাহান, সমীর মহাজন লিটন, জাইদুল ইসলাম দুর্লভ প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।