হার্ডলাইনে সুজন, পোর্ট কানেকটিং এ ২৪ ঘন্টায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ চসিকের

বাংলাদেশ মেইলঃ পোর্ট কানেকটিং রোডের ফুটপাত দখল করে থাকা অবৈধ দখলদারদের সরে যেতে চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজনের ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম শেষ হতেই উচ্ছেদ অভিযানে নেমেছে চসিক ভ্রাম্যমান আদালত।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মারুফা বেগম নেলী ও স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট (যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ) জাহানারা ফেরদৌস এর নেতৃত্বে আজ চট্টগ্রাম মহানগর এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হয়।

অভিযানকালে সাগরিকা মোড়ে অবৈধভাবে গড়ে উঠা প্রায় ২০টি কাঁচা-পাকা দোকান ভেঙ্গে দেয়া হয়। এরমধ্যে হোটেল,সিমেন্টর দোকান,বাস কাউন্টার, গাড়ীর গ্যারেজ সহ অন্যান্য দোকানপাট রয়েছে। এতে প্রায় ১৫ গন্ডা জায়গা উদ্ধার করা হয়। একই অভিযানে সাগারিকা মোড় হতে নয়া বাজার এলাকা পর্যন্ত রাস্তার উভয়পার্শ্বের ড্রেইনের উপর স্তুপ করে রক্ষিত মালামাল সরিয়ে ডেইন দখলমুক্ত করে সাধারণ মানুষের জন্য উম্মুক্ত করা হয়।

উল্লেখ্য গতকাল সকালে চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন উক্ত এলাকা সরেজমিনে পরিদর্শনে গিয়ে এসব অবৈধ দখলদারদেরকে ২৪ ঘন্টার সময় বেঁধে দেন। এরই কার্যকর পদক্ষেপ হিসেবে আজ এই অভিযান পরিচালিত হয়।

এসময় চসিক ম্যাজিস্ট্রেট অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে এরকম অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে ঘোষণা দিয়ে বলেন, যেহেতু উক্ত সড়কে উন্নয়ণ কাজ চলছে সেহেতু যেখানে প্রতিবন্ধকতা আসবে সেখানেই ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হবে। অন্যদের জন্য এটি একটি বার্তা। অভিযানকালে চসিক নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সাদাত মোহাম্মদ তৈয়ব, চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন পুলিশ ও চসিকের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ ম্যাজিষ্ট্রেটদ্বয়ের সাথে ছিলেন।