কাউন্সিলরশূন্য চসিকের ৪১ ওয়ার্ড দেখভালের দায়িত্বে ৩ কর্মকর্তা

বাংলাদেশ মেইল::

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের তিন কর্মকর্তাকে নগরীর ৪১ ওয়ার্ডের নিয়মিত কার্যক্রম দেখভালের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। সহায়ক পরিষদ গঠন কিংবা নতুন কাউন্সিলর নির্বাচিত না হওয়া পর্যন্ত কর্মকর্তাদের মাধ্যমে ওয়ার্ড কাউন্সিলরের কাজ চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন।

বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সামশুদ্দোহার সই করা এক অফিস আদেশে তিন কর্মকর্তাকে এই দায়িত্ব দেওয়া হয়।

এদের মধ্যে চসিকের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মুফিদুল আলম নগরীর এক থেকে ১৪ নম্বর ওয়ার্ড, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা ১৫ নম্বর থেকে ২৮ নম্বর ওয়ার্ড এবং সচিব আবু শাহেদ চৌধুরী ২৯ নম্বর থেকে ৪১ নম্বর ওয়ার্ডের কার্যক্রম দেখভালের দায়িত্ব পেয়েছেন।

চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজনের সম্মতিতে জারি করা এই অফিস আদেশে বলা হয়েছে, নির্বাচিত কাউন্সিলর দায়িত্ব গ্রহণ না করা পর্যন্ত ওয়ার্ডের পরিচ্ছন্নতা, ভৌত অবকাঠামো উন্নয়নসহ যাবতীয় তদারকি এবং সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের জন্ম ও মৃত্যুসনদ প্রদানের জন্য তিন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে।

গত ৫ আগস্ট চসিকের পঞ্চম নির্বাচিত পরিষদের মেয়াদ শেষ হয়। মেয়রের সঙ্গে নির্বাচিত ৪১ জন ওয়ার্ড কাউন্সিলর এবং ১৪ জন সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী কাউন্সিলরের মেয়াদও একইদিন শেষ হয়। এর একদিন আগে প্রশাসক পদে খোরশেদ আলম সুজনকে নিয়োগ দেওয়া হয় ৬ আগস্ট তিনি দায়িত্ব নেন।

এরপর বিদায়ী ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের কোনোরকম দাফতরিক কাজ না করতে চসিক থেকে নির্দেশনা দেওয়া হয়। ওয়ার্ড কার্যালয়ের স্বাভাবিক কার্যক্রম চালানোর জন্য সহায়ক পরিষদ গঠনের বিষয়ে নির্দেশনা চেয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেওয়া হয়।

চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সামশুদ্দোহা বলেন, ‘সহায়ক পরিষদ গঠনের বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত আসেনি। আপাতত তিন কর্মকর্তা কাজ করবেন। মন্ত্রণালয় চিঠির উত্তর দিয়ে সহায়ক পরিষদ গঠনের জন্য বলে তখন উনারা আর থাকবেন না।’