১৮০ দিনই লড়াই করে যাবো- খোরশেদ আলম সুজন

বাংলাদেশ মেইল ::  

নিরাপদ ও পরিছন্ন নগরী গড়ে তুলতে ১৮০ দিনই লড়াই করে যাবো৷ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনে নাগরিক সুবিধা বৃদ্ধি করতে নিজের সর্বোচ্চ চেষ্টা অব্যাহত রাখবো।

শুক্রবার(১৪ আগস্ট)বাংলাদেশমেইল এর নিয়মিত অনলাইন লাইফস্টাইল শো ‘চারপাশ’ এর ‘ চাই পরিচ্ছন্ন নগরী’ শীর্ষক আড্ডায় একথা বলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সদ্য নিযুক্ত প্রশাসক আলহাজ্ব খোরশেদ আলম সুজন।

সাংবাদিক শাহনেওয়াজ রিটনের উপস্থাপনায় মূখ্য আলোচক হিসেবে যোগ দেন চসিকের নবনিযুক্ত  প্রশাসক আলহাজ্ব খোরশেদ আলম সুজন।  চট্টগ্রামের সিনিয়র  সাংবাদিক তাজুল ইসলাম এবং নাসরিন জাহান আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন।

আলোচনায় নতুন প্রশাসক হিসেবে দায়িত্বপালনের চতুর্থ দিনে এসে সংক্ষিপ্ত সময়ের মধ্যে চট্টগ্রামকে ঘিরে নিজের স্বপ্ন এবং কর্মপরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন আলহাজ্ব খোরশেদ আলম সুজন। অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের করা চট্টগ্রামের উন্নয়ন,সমস্যা এবং সমাধান নানামুখী প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন তিনি।

অল্প সময়ে চট্টগ্রাম শহরের উন্নয়ন কতটুকু করা সম্ভব হবে এমন প্রশ্নে তিনি বলেন ‘ ১৮০ দিনেই হয়তো আমি সবকিছু সমাধান করতে পারবনা,যেহেতু আমার হাতে আলাউদ্দিনের প্রদীপ নেই,তবে আমি প্রয়াত মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর রেখে অসমাপ্ত কাজ বাস্তবায়নের লক্ষ্যেই এগিয়ে যাবো’।

সিটি কর্পোরেশনের সাথে অন্যান্য সেবা সংস্থার সমন্বয়হীনতা প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন ‘ আমি চট্টগ্রামের সমস্ত সেবাসংস্থা বিশেষকরে ওয়াসা,বিদ্যু, গ্যাস ইত্যাদি প্রতিষ্ঠানগুলোর সমন্বয়ে ‘কো-অর্ডিনেশন কমিটি’ গঠন করবো,যাতে করে চট্টগ্রামের সামগ্রিক সমস্যা দূর হয়’

চট্টগ্রাম শহরের দীর্ঘদিনের জনদুর্ভোগ পোর্ট কানেকটিং সড়কের অবকাঠামোগত কাজের অনগ্রসরতা সমাধানের পদক্ষেপ কি? প্রশ্নের জবাবে প্রশাসক বলেন, ‘৪ বছরে পদ্মাসেতু হয়েছে,কিন্তু পোর্ট কানেকটিং সড়কে কাজের অগ্রগতি হয়নি।চলতি বছরের নভেম্বরের মধ্যেই আমি এর কাজ সমাপ্ত করব’।

এছাড়াও এ কাজের সমাপ্ত না হওয়ার পেছনে অপেশাদার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এবং জি.কে শামীমকে দায়ী করেছেন।

হকারদের উচ্ছেদ করা হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ আমি হকার উচ্ছেদ করবনা,তবে নির্ধারিত ফর্মূলা মোতাবেক তাদেরকে বৈধভাবে ব্যবসা করার সুযোগ দিবো।

আড্ডায় স্বস্তিকর গণপরিবহণ,খানাখন্দ চিহ্নিতকরণে ২০ টি টিম গঠন,নগরীর সৌন্দর্যবর্ধন,স্বাস্থ্যসেবার মান উন্নয়নে সরকারি সহযোগিতার আশ্বাসসহ বিবিধ বিষয়এ নিজের পরিকল্পনার কথা আলোচনা করেছেন তিনি।

সর্বশেষ,ছাত্রজীবন থেকে আন্দোলন সংগ্রামে জড়িয়ে রাজনৈতিক,সামাজিক আন্দোলনে তার প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণের কথা বলেছেন।১৮০ দিনের এ লড়াইয়ে তিনি জয়ী হবেন বলে আশাবাদী সুুুজন। সমৃদ্ধ নগরী বিনির্মাণে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন।