জার্মানি, ফ্রান্স, ইতালি, স্পেনের মতো প্রশংসিত দেশগুলোতেও দেখা গেছে রেকর্ড সংক্রমণ

বাংলাদেশ মেইল::  

ইউরোপে করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) দ্বিতীয় দফা সংক্রমণের আশঙ্কা কয়েক মাস আগ থেকেই জারি ছিল। সম্প্রতি সে আশঙ্কা সত্যে পরিণত হওয়ার সবচেয়ে বড় ইঙ্গিত মিলছে। প্রথম দফায় করোনার প্রাদুর্ভাব সবচেয়ে বেশি দেখা যাওয়া দেশগুলোর পাশাপাশি করোনা নিয়ন্ত্রণে প্রশংসিত দেশগুলোতেও দেখা গেছে রেকর্ড সংক্রমণ।

এর মধ্যে রয়েছে ইতালি, ফ্রান্স, স্পেন ও জার্মানি। জার্মানি বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন সংক্রমণ ধরা পড়েছে ১ হাজার ৭০৭টি। এপ্রিলের পর দেশটির জন্য এটাই ছিল একদিনে সর্বোচ্চ সংক্রমণের ঘটনা। ফ্রান্স জানিয়েছে, দেশটিতে সংক্রমণ তরতর করে বেড়ে চলেছে। একদিনে প্রায় ৪ হাজার সংক্রমণ ধরা পড়েছে।

স্পেন জানিয়েছে, মধ্যজুনে লকডাউন শেষ হওয়ার পর একদিনে সর্বোচ্চ সংক্রমণ ধরা পড়েছে। অন্যদিকে, মে মাসের পর সর্বোচ্চ সংক্রমণ ধরা পড়েছে ইতালিতেও। এ খবর দিয়েছে দ্য ডেইলি মেইল।

খবরে বলা হয়, ইউরোপের অন্যান্য সমকক্ষীয় দেশগুলোর তুলনায় করোনা নিয়ন্ত্রণে এখন অবধি বেশ সফল রয়েছে জার্মানি। তবে সম্প্রতি সেখানেও বাড়ছে সংক্রমণ। গ্রীষ্মকালীন ছুটিতে নতুন করে বেগ পেয়েছে করোনা সংক্রমণ। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বেশিরভাগ সংক্রমণের জন্য দায়ী বিদেশ থেকে ছুটি কাটিয়ে আসা, পার্টি করা ও জমায়েতে যোগ দেওয়া ব্যক্তিরা।

রবার্ট কোচ ইন্সটিটিউট অনুসারে, এখন পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন অন্তত ২ লাখ ২৮ হাজার ৬২১ জন। বর্তমানে সংক্রমণের হার গত এপ্রিলের পর সর্বোচ্চ পর্যায়ে রয়েছে। ধারণা করা হয়, এপ্রিলে জার্মানিতে করোনার সংক্রমণ চূড়ায় ছিল। সেসময় একদিনে সর্বোচ্চ সংক্রমণ ধরা পড়েছিল ৬ হাজারেরও বেশি।

এ দিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে প্রাণ হারিয়েছেন ১০ জন করোনা রোগী। এ নিয়ে সেখানে করোনায় নিশ্চিত মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯ হাজার ২৫৩ জন। জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল মঙ্গলবার জানিয়েছেন, দেশটিতে করোনা নিয়ন্ত্রণে বিধিনিষেধ আর শিথিল করা হবে না।

ফ্রান্স কর্তৃপক্ষ বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৭০০ জনের বেশি। এর আগের দিন এ সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৫০০ জনের বেশি। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এখন সব বয়সের মানুষই আক্রান্ত হচ্ছে। তবে তরুণ প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে সংক্রমণের হার বেশি। এখন পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন প্রায় ৩০ হাজার ৫০০ জন।

ইতালি বুধবার জানিয়েছে, মে মাসের পর একদিনে সর্বোচ্চ সংক্রমণ ধরা পড়েছে সেখানে। কর্তৃপক্ষ এদিন জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে ধরা পড়েছে নতুন ৬৪২টি সংক্রমণ। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২ লাখ ৫৫ হাজার। মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে প্রায় সাড়ে ৩৫ হাজারে।

স্পেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, মধ্য-জুনের পর একদিনে সর্বোচ্চ সংক্রমণ ধরা পড়েছে সেখানে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশজুড়ে নতুন করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৭১৫ জন। গত দুই সপ্তাহ ধরে প্রতি ১০ লাখ মানুষে ১৩৬ জন আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হচ্ছেন।

দেশজুড়ে নতুন করে জারি করা হয়েছে বিধিনিষেধ। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাণ হারিয়েছেন ১২৭ জন করোনা আক্রান্ত। দেশটিতে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৮ হাজার ৮০০ জনে।

ইউরোপের পূর্বাঞ্চলেও বেড়ে চলেছে করোনার দাপট। ইউক্রেন কর্তৃপক্ষ বৃহস্পতিবার জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে ২ হাজারের বেশি।