চট্রগ্রাম শহরে এবার সিনেমা ষ্টাইলে দিনে দুপুরে ব্যবসায়ী অপহরন

বাংলাদেশ মেইল ::

চট্টগ্রাম শহরের হালিশহর এলাকার বউবাজার এলাকা থেকে এক ব্যবসায়ীকে অপহরণের ঘটনা ঘটেছে।  ১৬ই অক্টোবর (শুক্রবার)বিকাল ৩টায় চট্টগ্রাম শহরের হালিশহর এলাকার বউবাজারের দুলহান কমিউনিটি সেন্টারের সামনে থেকে তাকে অপহরণ করা হয় ।

পারিবারিক সুত্র জানায়, অপহৃত ব্যক্তি দক্ষিন খুলশীর রোড নং ০২,বাড়ি নং ২৯ এর ফ্ল্যাট ৭ এ বসবাসকারী ব্যবসায়ী মো:সাইফুল( ৪০)।  হালিশহর থানায় দায়ের করা অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে মুহাম্মদ সাইফুল স্ত্রীসহ ছেলেমেয়ে নিয়ে নিজের প্রাইভেট গাড়ীতে করে হালিশহর থানার বউ বাজার এলাকার দুলহান কমিউনিটি সেন্টারে একটি আত্বীয় এর বিয়ে বাড়িতে যায়।

বিয়ের দাওয়াত শেষে নিজের ব্যক্তিগত গাড়ীতে উঠতে গেলেই, আগে থেকে পূর্বপরিকল্পিত ভাবে ব্যবসায়ীক বিরোধ থাকা বউবাজার এলাকার জনৈক  শামসুল আলমের ছেলে নওশাদ মাহমুদ রানা (৫৩)এবং তার ড্রাইভার মুহাম্মদ ইকবালসহ ১০/১৫জন  সাইফুল ইসলামকে প্রকাশ্যে মারধর করে এলটি সিলভার কালার নোহা করে নিয়ে যায়।

সাইফুল ইসলামকে নিয়ে যাওয়ার সময় বিয়ের অনুষ্টানে উপস্থিত থাকা লোকজন বাধা দিলে তাদের লাঠি  ও বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে দ্রুত বউ বাজার এলাকার দুলহান কমিউনিটি স্থান ত্যাগ করে ব্যবসায়ী  অপহরনকারীরা।

এ বিষয়ে হালিশহর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন,অপহৃত ব্যবসায়ী মুহাম্মদ সাইফুলের স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস।

এবিষয়ে হালিশহর থানার ওসির সরকারি ফোনে বেশ কয়েকবার কল করে ও সংযোগ স্থাপন করা সম্ভব হয়নি।

বিয়ের অনুষ্টান থেকে প্রকাশ্য মারধর করে ব্যবসায়ী সাইফুলকে অপহরনের বিষয়ে স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন,আমরা আত্বীয়ের বিয়ে বাড়িতে গেলে পূর্ব থেকে বিরোধ থাকা নওশাদ মাহমুদ রানা ও তার ড্রাইভার ইকবালসহ আমার স্বামীকে উঠিয়ে নেয়ার মুহূর্তে আমরা বাধা দিলেও স্বামীকে ধরে রাখতে পারিনি।

জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন,  প্রকাশ্যে দিবালোকে এমন অপহরন আমাদেরকে হতবাক করেছে।আমরা থানা সহ অন্যান্য আইনশৃংখলা বাহিনীকে বিষয়টি অবগত করেছি।যাতে আমার স্বামীকে জীবিত ফেরত পাই,তবে এখন শুনতেছি আমার স্বামীকে নাকি চান্দগাও এলাকার মৌলভী পুকুর পাড়ে আটকে ব্যাপক নির্যাতন করা হচ্ছে।এবং আমাকে বিভিন্ন হুমকী ধমকি দিয়ে বিভিন্ন নাম্বার থেকে কল করা হচ্ছে।