নাজিরহাট বড় মাদ্রাসার শুরা বৈঠক কাল, কড়া নিরাপত্তার চেয়ে এমপির চিঠি

বাংলাদেশ মেইল ::

নাজিরহাট বড় মাদ্রাসার মুহতামিম নিয়ে সৃষ্ট জটিলতা নিরসনে শুরা বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আগামী কাল বুধবার। শুরা বৈঠকে অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়াতে প্রশাসনের কড়া নজরদারি চেয়ে জেলা প্রশাসক বরাবর চিঠি দিয়েছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য নজিবুল বশর মাইজভান্ডারি।

জানতে চাইলে সাংসদ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারি জানান,  নাজিরহাট বড় মাদ্রাসা একটি ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এই মাদ্রাসা পরিচালনা নিয়ে সৃষ্ট জটিলতা নিরসনে শুরাই সব সিদ্ধান্ত নেবে। কিন্তু অযাচিতভাবে শুরা বৈঠককে পাশ কাটিয়ে প্রতিষ্ঠান পরিচালনার চেষ্টা করার কারনে জটিলতা তৈরি হয়েছে। যেহেতু শুরা বৈঠকের বিপক্ষে একটি চক্র রয়েছে সেকারনে প্রশাসনকে কড়া নজরদারির নির্দেশ দিয়েছি।

চিঠিতে তিনি শুরা বৈঠক চলাকালে নাজিরহাট বাজার ও মাদ্রাসার আশপাশের সড়ক বন্ধ রাখার অনুরোধ করেছেন। নাজিরহাট বড় মাদ্রাসার মুহতামিম নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে স্থানীয়রা। ভারপ্রাপ্ত মুহতামিমকে সরিয়ে হেফাজত ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব  মাওলানা সলিম উল্লাহ নিজেকে মুহতামিম দাবি করলে সমস্যার রেশ ছড়ায় মাদ্রাসাটির মুতয়াল্লীদের মধ্যেও।

এ বিষয়ে ফটিকছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইদুল আরেফিন জানান, নাজিরহাট বড় মাদ্রাসার   শুরা বৈঠক চলাকালীন সময়ে বিকেল তিনটা পর্যন্ত স্থানীয় নাজিরহাট বাজার বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি বৈঠকের পক্ষে বিপক্ষে কোন সভা সমাবেশ যাতে না হয় সে ব্যাপারে পুলিশ প্রশাসনকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গেল ২৪ অক্টোবর সারাদিন নাজিরহাট বড় মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা শুরা বৈঠক চেয়ে আন্দোলন ও বিক্ষোভ করে। একই সময়ে নিজেকে মুহতামিম দাবি করা মাওলানা সলিম উল্লাহও সাংবাদিক সম্মেলন করছিলেন মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে। ছাত্রদের আন্দোলনের মুখে তিনি মাদ্রাসা প্রাঙ্গণ ত্যাগ করেন। পরবর্তিতে স্থানীয় সাংসদ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারির হস্তক্ষেপে শুরা বৈঠকের ঘোষনা দেয়া হয়। বাবুনগর মাদ্রাসার মুহতামিম মুহিবুল্লাহ বাবুনগরীর উপস্থিতিতে স্থানীয় সাংসদ চলমান জটিলতা নিরসনে শুরার বৈঠকের ঘোষনা দেন। সোমবার (২৬ অক্টোবর)  শুরা বৈঠকের তারিখ ঘোষনা করা হলেও, দুইদিন পিছিয়ে বুধবার (২৮ অক্টোবর) করা হয়।