আগ্রাবাদে প্রতিপক্ষ গ্রুপের হামলায় আহত যুবকের মৃত্যু

বাংলাদেশ মেইলঃঃ 

নগরীর ডবলমুরিং থানাধিন আগ্রাবাদ এলাকায় সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর আহত যুবক মারুফ চৌধুরী মিন্টু মারা গেছে৷ সন্ধ্যায় নগরীর রয়েল হাসপাতালে তিনি মারা যান বলে নিহতের পরিবার নিশ্চিত করেছে।

নিহত মারুফ চৌধুরী মিন্টু নগরীর দামুপুকুর পাড়ের কামাল চৌধুরীর ছেলে ও স্থানীয় যুবলীগ নেতা আলাউদ্দিন প্রলাশ পিচ্চি আলো’র ছোট ভাই। তিনি নিজেও যুবলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন বলে জানা গেছে ৷ এই হত্যাকান্ডের জন্য স্থানীয় যুবলীগের মোস্তাফা কালাম টিপু গ্রুপকে দায়ী করা হচ্ছে।

জানা গেছে, গতকাল রাত পৌনে দশটার সময় ৪-৫ জনের একদল সন্ত্রাসী ডবলমুরিং থানাধীন আগ্রাবাদ হোটেলের পাশের সড়কে মিন্টুকে পিটিয়ে গুরুতরআহত করে৷ এসময় সন্ত্রাসীদের আঘাতে মিন্টু মাথায় গুরুতর আঘাত পান। এরপর থেকে সজ্ঞাহীন মিন্টুকে আশংকাজনক অবস্থায় নগরীর রয়েল হাসপাতালে স্থানান্তর করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিলো৷ আজ সন্ধ্যা ৬টা নাগাদ চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান৷

স্থানীয়রা জানিয়েছে, মোগলটুলি এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে যুবলীগের দুটি গ্রুপের মধ্যে অভ্যন্তরিন কোন্দল চলছিলো৷ এই দ্বন্দের জেরে কিশোর গ্যাং মোস্তাফা কামাল টিপুর অনুসারী রমজান আলী প্রকাশ রমজান ও মাহবু প্রকাশ ইয়াবা মাবুর নেতৃত্বে মিন্টুর ওপর হামলা চালানো হয়৷

ডবলমুরিং থানা সূত্র জানিয়েছে, গতকালের হামলার ঘটনার পর উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন৷ তবে এই সংক্রান্ত কোন লিখিত অভিযোগ করা হয়নি৷এদিকে নিহতের পরিবার জানিয়েছে, মিন্টুর অবস্থা আশংকাজনক হওয়ার অভিযোগ বা মামলার করা না হলেও বিষয়টি ডবলমুরিং থানাকে অবহিত করা হয়েছিলো৷ আজ পরিবারের পক্ষ থেকে হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানিয়েছে নিহতের স্বজন৷