হেফাজতের নতুন আমির বাবুনগরী, মহাসচিব কাসেমী

বাংলাদেশ মেইল ::

হেফাজতের নতুন আমির হলেন আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী ও মহাসচিব নূর হোসাইন কাসেমী। রবিবার সকাল থেকে হাটহাজারী মাদ্রাসায় শুরু হয় হেফাজতের সম্মেলনে। যোহরের বিরতির পর সম্মেলনের কার্যক্রম শুরু হলে ঘোষনা করা হয় নতুন আমির ও মহাসচিবের নাম।

সম্মেলনে হেফাজত ইসলামের ১৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। নতুন আমীর নির্বাচিত হয়েছেন আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী। একই সম্মেলেন মহাসচিব নির্বাচিত হয়েছেন ঢাকার জামিয়া মাদানিয়া বারিধারা মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল ও হেফাজতের ঢাকা মহানগর শাখার আমির নূর হোসাইন কাসেমী।

সারাদেশ থেকে কওমি অঙ্গনের চার শতাধিক শীর্ষ আলেম হাটহাজারী মাদ্রাসায় উপস্থিত হয়ে মরহুম আমির আহমদ শফির উত্তরসূরী নির্বাচিত করেন। হেফাজত ইসলামের প্রতিষ্ঠাতা আমির ও হাটহাজারী মাদ্রাসার সাবেক মহাপরিচালক আল্লামা আহমদ শফি চলতি বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর ঢাকায় চিকিত্সাধীন অবস্থায় মারা গেলে আমিরের পদটি শূন্য হয়।

প্রতিষ্ঠার এক দশক পর কেন্দ্রীয় কাউন্সিল ঘিরে দেশের সর্ববৃহত্ ধর্মভিত্তিক অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ ভেঙে দুই টুকরা হবার আশংকা ছিল শুরু থেকেই।  কারণ সংগঠনের দুই গ্রুপের কোন্দল প্রকাশ্যে উঠে এসেছে।

হেফাজতের প্রয়াত আমির আল্লামা আহমদ শফিপন্থীরা কাউন্সিল বন্ধের আহবান জানিয়ে বলেছেন, অন্যথায় তারা আহমদ শফির খলিফাদের নিয়ে বিকল্প হেফাজতে ইসলাম গঠন করবেন। তবে হেফাজতের মূল অংশটি বলছে, নিয়মতান্ত্রিকভাবেই সংগঠনের মহাসচিব এই সম্মেলন ডেকেছেন।

২০১০ সালে প্রতিষ্ঠার পর প্রথমবারের মত আজ রবিবার হেফাজতের সদর দপ্তর হিসেবে পরিচিত চট্টগ্রামের দারুল উলুম হাটহাজারী মাদ্রাসায় সংগঠনের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সকাল ১০টায় আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়ে বিকাল পর্যন্ত চলবে কাউন্সিল। এতে সভাপতিত্ব করবেন সংগঠনটির সিনিয়র নায়েবে আমির আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী।

শফিপন্থীরা অভিযোগ করেছেন, আজকের এ কাউন্সিলে সংগঠনটির নায়েবে আমীর আব্দুল কুদ্দুস ফরিদাবাদি, যুগ্ম-মহাসচিব মাইনুদ্দীন রুহী, মুফতি ফয়জুল্লাহ, প্রচার সম্পাদক শফিপুত্র আনাস মাদানীসহ বর্তমান কমিটির বেশ কয়েকজন নেতাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি।

এর মাধ্যমে আল্লামা শফির অনুসারীদের বাদ দিয়েই সংগঠনটির এ কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। তবে হেফাজতের কাউন্সিল আয়োজনকারীরা বলছেন, যারা হেফাজতে সক্রিয় আছেন সকলকেই আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। কয়েকজন বিতর্কিত ব্যক্তি আছেন, যারা উপস্থিত হলে বিশৃংখল পরিস্থিতির সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে- তাদেরকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি।

এদিকে ঢাকা ও চট্টগ্রামে পৃথক সংবাদ সম্মেলনে আহমদ শফির অনুসারীরা বলেছেন, হেফাজতে ইসলামের নতুন কাউন্সিল ডাকার বৈধতা নেই।