যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিদিন মৃত্যুর সংখ্যা ৯০০
করোনা: দিনে আক্রান্ত ১ লাখ, ওয়াশিংটন ও মিশিগানে বিধিনিষেধ

বাংলাদেশ মেইল ::

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা এক কোটি ১০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। এ অবস্থায় কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করছে মিশিগান ও ওয়াশিংটন। এর আওতায় স্কুল-কলেজের সরাসরি পাঠদান স্থগিত থাকবে। তবে অনলাইনে চালু থাকবে এ কার্যক্রম। ওদিক মিশিগানে বুধবার থেকে রাত্রীকালিন খাবার পরিবেশন নিষিদ্ধ করা হয়েছে রেস্তোরাঁগুলোতে। ওয়াশিংটনে ইনডোর রেস্তোরাঁয় রাতের খাবার পরিবেশন বন্ধ রাখার কথা বলা হয়েছে। সেখানে বন্ধ থাকবে জিম, থিয়েটার এবং জাদুঘর। যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমানে প্রতিদিন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এক লাখ ছাড়িয়ে যাচ্ছে।

আর করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রতিদিন কমপক্ষে ৯০০ মানুষ মারা যাচ্ছেন। সব মিলিয়ে এ পর্যন্ত সেখানে করোনা ভাইরাস মহামারিতে মারা গেছেন দুই লাখ ৪৬ হাজার ২১০ জন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। তবে এ অবস্থার মধ্যে শুক্রবারও আশাবাদের মধ্যে আটকে ছিল প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন। তারা বলেছে, ডিসেম্বরের মধ্যে অনুমোদিত টিকার দুই কোটি ডোজ বিতরণ করা হবে। এরপর প্রতি মাসে এইভাবে টিকা দেয়ার কথা বলা হয়েছে, যদিও এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দেয়া হয়নি কোনো টিকা। আরো একবার যুক্তরাষ্ট্রে লকডাউন দেয়ার কথা প্রত্যাখ্যান করেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। কিন্তু অনেক রাজ্য এরই মধ্যে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে তাদের নিজেদের মতো করে বিধিনিষেধ আরোপ করেছে।
মিশিগান ও ওয়াশিংটনে কয়েক সপ্তাহে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা দ্বিগুন হয়েছে। মিশিগানের গভর্নর গ্রেশ্চেন হোয়াইটমার বলেছেন, তার রাজ্যে ক্রমশ বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। যদি ব্যবস্থা গ্রহণ করা না হয় তাহলে প্রতি সপ্তাহে সেখানে শিগগিরই গড়ে ১০০০ মানুষ মারা যেতে পারেন। এর প্রেক্ষাপটে সরাসরি স্কুলে শিক্ষা দেয়া স্থগিত এবং রেস্তোরাঁয় রাতের খাবার পরিবেশন স্থগিত রাখার পাশাপাশি তিন সপ্তাহের জন্য সব সরকারি বিনোদন কেন্দ্রগুলো বন্ধের ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। ওয়াশিংটনে দেয়া বিধিনিষেধ কার্যকর হবে সোমবার সন্ধ্যা থেকে এবং তা স্থায়ী হবে একমাস। গভর্নর জে ইনস্লে বলেছেন, ১৫ই নভেম্বর ছিল রাজ্যের শত বছরের মধ্যে সবচেয়ে বিপজ্জনক জনস্বাস্থ্যের দিন। মহামারি ক্রমশ থাবা বসাচ্ছে আমাদের রাজ্যে। হাসপাতাল এবং মর্গে স্থান সংকুলান কঠিন হযে পড়ছে।