২০ লক্ষ টাকার বিনিময়ে ছাত্রলীগের কমিটি, হত্যা ও অপহরণ মামলার আসামি সাধারণ সম্পাদক

বাংলাদেশ মেইল ::

২০ লাখ টাকা আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে সীতাকুন্ডে নতুন প্রেস কমিটি করা হয়েছে। এছাড়া নবনির্বাচিত সভাপতি নির্বাচনে নির্ধারিত বয়স মানা হয়নি বলে অভিযোগ করছেন পদবন্ঞ্চিতরা।

এছাড়া সাধারণ সম্পাদকের নামে হত্যা ও অপহরণ মামলা রয়েছে (চট্টগ্রাম মেজিস্ট্রেট আদালত, মামলা নং-৩৩৯/১৮)।তাদের ছাত্রলীগের কোথাও প্রাথমিক সদস্য পদও ছিলো না। সাধারণ সম্পাদক জিলানী শিবিরের রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলো বলে অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) সকালে শিহাব উদ্দীনকে সভাপতি ও এসএম রিয়াদ জিলানীকে সাধারণ সম্পাদক করে সীতাকুণ্ড উপজেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি ঘোষণা করেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর হোসেন চৌধুরী তপু ও সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম।

প্রসঙ্গত, আহবায়ক শায়েস্তার কাছে কমিটি টিকিয়ে রাখতে ২০ লক্ষ টাকা দাবী করে, বাধ্য হয়ে পৈতৃক জায়গা বিক্রি করে ৮ লক্ষ টাকা দেয় বহু কষ্টে। কিন্তু বর্তমান দুইজন ২০ লাখ টাকা দেয়াতে ৭ লাখ ফেরত দেয়, ১ লাখ টাকা এখনো ফেরত দেওয়া হয়নি বলে নিজের ফেইজবুক পেইজে পোষ্ট করেছে গোলাম রাব্বানী।

তিনি আরো উল্লেখ করেন, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা, এক বছর মেয়াদি কমিটি আড়াই বছর পেরিয়ে গেলেও আজ অবধি পূর্ণাঙ্গ করতে পারেনি। আমাদের সময়ে বারবার তাগিদ দেয়ার পরও তারা পূর্ণাঙ্গ কমিটি জমা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। তখন চট্টগ্রামের শ্রদ্ধাভাজন বর্ষীয়ান নেতা, ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ ভাইয়ের কথায় তাদের সুযোগ দেয়া হয়েছিলো।আওতাধীন ৭ টি উপজেলার সবকটিই মেয়াদ উত্তীর্ণ।গতবছর একযুগ পুরোনো সীতাকুণ্ডের কমিটি করেছে আর কিছুদিন পূর্বে মীরেরসরাই। অবশিষ্ট ৫ টি কমিটি রিপন-রোটন ভাই ও সোহাগ-নাজমুল ভাইয়ের সময়কার অর্থাৎ গড়ে ৬-৮ বছর আগের পুরনো কমিটি বাদ দিয়ে, কাউকে কিছু না জানিয়ে ২০ লাখ টাকা আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে সীতাকুন্ডের কমিটি (গতবছর করা) ভেঙ্গে আজ নতুন প্রেস কমিটি করা হয়েছে!

শায়েস্তা খান বলেন, ‘আমাদের আহ্বায়ক কমিটি টিকিয়ে রাখতে ২০ লক্ষ টাকা দাবি করেছিল রেজাউল। বাধ্য হয়ে পৈতৃক জায়গা বিক্রি করে তাকে ৮ লক্ষ টাকা দিই বহু কষ্টে। কিন্তু বর্তমান দুইজন ২০ লাখ টাকা দেয়াতে ৭ লাখ ফেরত দেয়। ১ লাখ টাকা এখনও রয়ে গেছে জেলা সেক্রেটারির কাছে।’

অন্যদিকে রেজাউল করিম পুরো বিষয়টি বানোয়াট বলে দাবি করেন। তিনি বলেন, ‘এগুলো বানানো কল রেকর্ড। এই ধরনের লেনদেনের কোন সত্যতা নেই।’