মুন্সীগঞ্জে পৃথক ঘটনায় ৪ জনের লাশ উদ্ধার

বাংলাদেশ মেইল ::

মুন্সীগঞ্জে পৃথক ঘটনায় ৪ জনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। জেলা শহরের বাগমামুদালীপাড়া ভাড়া বাসা থেকে প্রেমিক যুগলের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ, এছাড়া জেলার সিরাজদীখানে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে সন্তানের বিরুদ্ধে বাবাকে পিটিয়ে  হত্যার অভিযোগ রয়েছে। অন্যদিকে উপজেলার লতব্দীতে অজ্ঞাত এক যুবতীর লাশ উদ্ধার করেছে সিরাজদীখান থানা পুলিশ।

বুধবার সকাল ৯ টায় উপজেলার চিত্রকোর্ট ইউনিয়নের কালিপুর গ্রামে ৭০ বছর বয়সী ওহাব সরকার তার নিজ জমিতে গেলে তার ছেলে লিয়াকত সরকারের (৫০) লাঠির আঘাতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। চিত্রকোট ইউপি চেয়ারম্যান সামছুল হুদা বাবুল জানান, ছেলে লিয়াকতকে সম্পত্তি লিখে না দেওয়ার কারণে সকালে ওহাব সরকার তার নিজ জমিতে গেলে ছেলে লিয়াকত সরকার তার বাবাকে পিটিয়ে হত্যা করে।

শেখরনগর তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মো.আসাদুজ্জামান জানান, পিটিয়ে হত্যা করেছে নাকি স্টক করেছে বিষয়টি এখনো নিশ্চিত হতে পারিনি। তবে জমিজমা নিয়ে বাবা-ছেলের সাথে বিরোধ ছিল দীর্ঘ দিন যাবৎ। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

অন্যদিকে উপজেলার লতব্দী ইউনিয়নের পরিষদ সড়কের লতব্দী বড় গোয়ালবাড়ী সংলগ্ন সড়কের খাদে সকাল সাড়ে ৯ টায় আনুমানিক ২০ বছর বয়সী গলাকাটা এক যুবতীর লাশ উদ্ধার করেছে পুিলশ। সিরাজদীখান থানার পুলিশ পরিদর্শ (তদন্ত) মো.এমদাদুল হক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, লাশের গলায় আঘাতের চিহ্ন আছে এবং লাশের পাশে ধারালো চাকু পাওয়া গেছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে জেলা শহরে জয় মজুমদার (৩০) ও মিতু সরকার নামের পরকীয়া প্রেমিক যুগলের মরদেহ উদ্ধার করেছে সদর থানা পুলিশ। বুধবার দুপুরে শহরের বাগমাহমুদালীপাড়ার একটি ভাড়া বাসার রুম থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, কুমিল্লা জেলার গজারিয়া গ্রামের মান্নান মজুমদারের ছেলে ও মুন্সীগঞ্জ শহরের বাগমাহমুদালী পাড়ার বাসিন্দা লিটন সরকারে তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী মিতু সরকারের সাথে পরকীয়া সর্ম্পক ছিলো। তবে কি কারণে আর কেন দুজনের এমন মৃত্যু হয়েছে সেটা এখনো জানা যায়নি। ধারাণা করা হচ্ছে একজন আরেক জনকে হত্যা করে অপরজন নিজে আত্মহত্যা করেছে। সকালে রুমে ফ্যানের সাথে জয় মজুমদারের মরদেহ ঝুলে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়া হয়। পরে পুলিশ এসে দুই যুগলের মরদেহ উদ্ধার করে।

এ ব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আনিচুর রহমান বলেন, দুই প্রেমিক যুগলের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে বলেও তিনি জানান।