চমেকের দুই চিকিৎসকসহ চার জনকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ

বাংলাদেশ মেইলঃঃ  

বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) চট্টগ্রাম শাখার সাধারণ সম্পাদক ডা. ফয়সল ইকবাল চৌধুরীর জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ তদন্তে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের দুই চিকিৎসক, এক কর্মকর্তা ও এক কর্মচারীকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) দুদক জেলা কার্যালয়-২ এর উপ-সহকারী পরিচালক মো. শরিফ উদ্দিন এই চারজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

জিজ্ঞাসাবাদ করা চারজন হলেন-চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. আখতারুল ইসলাম, রক্ত পরিসঞ্চালন বিভাগের প্রধান ডা. তানজিলা তাবিব চৌধুরী, টেন্ডার শাখার প্রধান মঈনুদ্দিন আহমেদ ও তার স্ত্রী অফিস সহকারী কানিছ ফাতেমা।

দুদক সূত্র জানায়, টেন্ডার প্রক্রিয়া নিয়ে টেন্ডার শাখার প্রধান মঈনুদ্দিন আহমেদ জিজ্ঞসাবাদ করা হয়-‘কেন ঘুরেফিরে একই ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান টেন্ডার পায়।

অন্যরা পায় না কেন? রক্ত পরিসঞ্চালন বিভাগের প্রধান ডা. তানজিলা তাবিব চৌধুরীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়-ব্লাড ব্যাংকের নানা অনিয়ম নিয়ে। এছাড়া চমেকের নানা দুর্নীতি-অনিয়ম, হয়রানির বিষয়ে ডা. আখতারুল ইসলামকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

দুদকের এক কর্মকর্তা  বলেন, সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত দুই চিকিৎসক, এক কর্মকর্তা ও একজন কর্মচারীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। চমেকের নানা অনিয়ম, দুর্নীতির বিষয়ে তাদের প্রশ্ন করা হয়েছে।