হাবিবুর রহমানের গ্রামের বাড়িতে পুলিশী হয়রানির নিন্দা যুক্তরাজ্য বিএনপির

বাংলাদেশ মেইল ::

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল যুক্তরাজ্য শাখার সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমানের বাংলাদেশের গ্রামের বাড়ী সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার উত্তর দৌলতপুরে (মোকাম বাড়ী) গত ২৪ নভেম্বর মধ্যে রাতে বিশ্বনাথ থানা পুলিশ কর্তৃক হয়রানির তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে যুক্তরাজ্য বিএনপি ।

যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম মালেক এবং সাধারন সম্পাদক কয়ছর এম আহমেদ এক বিবৃতিতে বিনা কারনে বিশ্বনাথ থানা পুলিশ কর্তৃক যুক্তরাজ্য বিএনপি নেতার গ্রামের বাড়ীতে হয়রানি ও ভয়-ভীতি প্রদর্শনের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

প্রতিবাদ বার্তায় যুক্তরাজ্য বিএনপির শীর্ষ নেতৃবৃন্দ বলেন, প্রবাসী বিএনপির নেতা-কর্মীর বাড়ীতে পুলিশি হয়রানি ফ্যাসিবাদী আওয়ামী সরকারের কাপুরুষিত কর্মকান্ডের বহিঃপ্রকাশ। মধ্যরাতে ভোট ডাকাতির মাধ্যমে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত স্বৈরাচারী সরকার জনগণের ট্যাক্সের টাকায় পরিচালিত রাষ্ট্রের পুলিশ বাহিনীকে দলীয় পেটুয়া বাহিনীতে পরিণত করেছে। অতি উৎসাহী কিছু পুলিশের সাথে আওয়ামী সন্ত্রাসী ও তাদের অঙ্গসংগঠন ছাত্রলীগ ও যুবলীগের সন্ত্রাসীদের দিয়ে প্রবাসী নেতাকর্মীদের দেশের বাড়িতে অবস্থানরত আত্মীয়-স্বজনদের নানাভাবে হুমকি ধামকি ও হয়রানি করছে।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, আওয়ামী দলীয় সন্ত্রাসী ও আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর কিছু সদস্য কর্তৃক বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, সাবেক এমপি এম ইলিয়াস আলীসহ অসংখ্য বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের গুম, খুন,ও নির্যাতনের বিরুদ্বে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় সোচ্চার হচ্ছে বিধায় এরা জনগণের মধ্যে ভীতি ও আতংক ছড়িয়ে রাষ্ট্রক্ষমতায় থাকার অশুভ তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। রেমিটেন্স যোদ্ধা প্রবাসী নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে অযথা হয়রানি ও গায়েবি মামলা এবং বাড়ি বাড়ি তল্লাশির ঘটনায় বোঝা যায় এই অবৈধ সরকারের বিদায় ঘন্টা বেজে গিয়েছে। বাংলাদেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও জনগণের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠায় যুক্তরাজ্য বিএনপির নেতা-কর্মী নিরলস কাজ করে যাচ্ছে বলেই আজ তাদের বাড়িতে এই রকম নেক্কারজনক তল্লাশির নামে হয়রানি করা হচ্ছে। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ স্বৈরাচারী সরকারের দলীয় সন্ত্রাসী এবং অতি উৎসাহী কিছু পুলিশের মাধ্যমে প্রবাসী বিএনপির নেতা কর্মীদের গ্রামের বাড়িতে তল্লাশি ও আত্মীয়-স্বজনদের হয়রানি বন্ধ করার জোর দাবি জানান।