পরাজয়ে মৌন সম্মতি জানিয়ে হোয়াইট হাউসের যোগাযোগ পরিচালক এলিসার পদত্যাগ

বাংলাদেশ মেইল ::

হোয়াইট হাউসের যোগাযোগ পরিচালক এলিসা ফারাহ (যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময়) বৃহস্পতিবার পদত্যাগ করেছেন। ৩১ বছর বয়স্ক ফারাহ নিজ দায়িত্বপালনকালে হোয়াইট হাউস করোনাভাইরাস বিষয়ক টাস্ক ফোর্সের জনসংযোগের ক্ষেত্রে শীর্ষ ব্যক্তি ছিলেন।

ওয়াশিংটন পোস্ট সর্বপ্রথম তার পদত্যাগের খবর প্রকাশ করে। এরপর সিএনএন সহ অন্যান্য প্রভাবশালী গণমাধ্যম বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের প্রেস সেক্রেটারি হিসেবে হোয়াইট হাউসে পা রাখা ফারাহ গত বছর সেপ্টেম্বরে প্রতিরক্ষা বিভাগের প্রেস সেক্রেটারি হন। গেলো এপ্রিলে তিনি হোয়াইট হাউসের যোগাযোগ পরিচালক পদে যোগদান করেন। একই প্রশাসনের অধীনে এই তিন পদে দায়িত্বপালনকারী তিনি-ই প্রথম ব্যক্তি। তিনি ছিলেন পেন্টাগনের সর্বকনিষ্ঠ প্রেস সেক্রেটারি। সুতরাং বোঝাই যাচ্ছে, ট্রাম্প প্রশাসনে তিনি কতোটা প্রভাব বিস্তার করেছিলেন। ট্রাম্পের সাথে বনিবনা না হওয়ায় বিভিন্ন সময় বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তার পদত্যাগ বা বরখাস্তের ভীড়ে, ফারাহ ছিলেন ব্যতিক্রম।

তিনি দীর্ঘ সাড়ে তিন বছর টিকে ছিলেন।

পদত্যাগপত্রে তিনি লিখেছেন, “আমাদের দেশকে আরও শক্তিশালী, নিরাপদ এবং সুরক্ষিত করতে আমরা যেসব অবিশ্বাস্য জিনিস অর্জন করতে পেরেছি, সেজন্য আমি অত্যন্ত গর্বিত।”

প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত জো বাইডেনের শপথ নেয়াকে সামনে রেখে হোয়াইট হাউসের বর্তমান কর্মীরা যখন তাদের পরবর্তী চাকরির পরিকল্পনা করছেন, এমন এক সময়ে ফারাহ এর পদত্যাগের বিষয়টি সামনে আসলো। ট্রাম্প নির্বাচন মেনে নিতে অস্বীকার করলেও, বাইডেনের জয়ের পর ফারাহ জনসমক্ষে যেসব মন্তব্য করেছেন সেগুলোর বেশিরভাগই নির্বাচন মেনে নেয়ার পক্ষে ইতিবাচক।