চন্দনাইশে রাতের আঁধারে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি সম্বলিত ব্যানার ছেঁড়ার ঘটনায় স্থানীয়দের ক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

চন্দনাইশ উপজেলার ধোপাছড়ী ইউনিয়নে বিজয় দিবসকে কেন্দ্র করে ও স্থানীয় সাংসদের ইউনিয়নে আগমন উপলক্ষে লাগানো বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি সংবলিত ব্যানার ফেস্টুন ছেঁড়ার ঘটনা গঠেছে।

গত ১৬’ই ডিসেম্বর বিজয় দিবস উদযাপন ও নবনির্মিত ধোপাছড়ী ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন এবং ধোপাছড়ী টু চন্দনাইশ সরাসরি সংযোগ (খাঁনহাট-ধোপাছড়ী-বান্দরবান) সড়কের উদ্বোধন উপলক্ষ্যে প্রধান অতিথি হিসেবে ধোপাছড়ীতে আসেন চন্দনাইশ-সাতকানিয়া(আংশিক) এর সাংসদ মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে অতিথিদের আগমন এবং বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে ধোপাছড়ী ইউনিয়নের বিভিন্নস্থানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা,
স্থানীয় সাংসদ ও জেলা-উপজেলার নেতৃবৃন্দের ছবি সম্বলিত ব্যানার-ফেস্টুন লাগান আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল আলিম।কিন্তু রাতের আঁধারে ছিঁড়ে ফেলা হয় এসব ব্যানার-ফেস্টুন।এসময় স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সহ বিভিন্ন জন ব্যানার ফেস্টুন লাাগলেও শুধু ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে আওয়ামী লীগ নেতা
আব্দুল আলিমের লাগানো ব্যানার-ফেস্টুন।

এ বিষয়ে আব্দুল আলিম  বলেন-‘কিছু দুষ্কৃতিকারী আমার বিজয় দিবসের দেওয়া ব্যানার-ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলে, অথচ উক্ত ব্যানারে বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী, মাননীয় এমপি সহ অনেকের ছবি ছিল। যে বা যারাই এ কাজ করেছে তারা শুধু আমার ব্যানার-ফেস্টুন ছিঁড়ে অবমাননা করেনি বরং বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী ও এমপি সাহেবের ছবিকে অবমাননা করেছে। আমি প্রশাসনের কাছে এমন গর্হিত ও ঘৃণিত কাজ যারা করেছে তাদের সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোরশেদুল আলম জানান,’-এগুলা রাতের আঁধারে কে বা কারা ছিঁড়েছে আমার জানা নেই,আমি প্রশাসনকে জানিয়েছি এ ব্যপারে তথ্য নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি সম্বলিত এসব ব্যানার ছেঁড়ার কারণ কি মনে হয়?এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান,-‘আমি কি মনে করবো?রাতের আঁধারে কাউকে দেখিনি,কাকে মনে করবো?অমুকে ছিড়ছে একথা ত আমি বলতে পারবো না!তবে সকালে এটা দেখার পর আমি যারা দ্বায়িত্বে আছেন তাঁদের আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলেছি এবং এটাও বলেছি এগুলা আমার ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য করেছে।যারা এসব ছিঁড়ছে আমিও তাঁদের বিচার চাই।

এদিকে এমন নিন্দনীয় ঘটনার বিচার চেয়েছেন স্থানীয়রা,নাম প্রকাশ না করা শর্তে এক বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থী জানান,আমরা তরুণ প্রজন্ম এসব নোংরা রাজনীতি দেখতে চাই না,আমরা চাই সুস্থ ও সুন্দর ধারার রাজনীতির চর্চা হউক এতে করে তরুণরা রাজনীতিতে আগ্রহী হবে।