৪২-এ পা দিলো ছাত্রদল

বাংলাদেশ মেইল ::

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ শুক্রবার। তিন দিনব্যাপী নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে সারা দেশে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনের ঘোষণা দিয়েছে সংগঠনটি। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীকে সামনে রেখে নতুন বছরে ছাত্রদলের প্রত্যাশা সম্পর্কে জানতে চাইলে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল মানবজমিনকে বলেন, বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার পর থেকে দেশ সব থেকে সংকটপূর্ণ অবস্থার মধ্যে রয়েছে। দেশে গণতন্ত্র নেই, মানবাধিকার ও সাম্যের অভাব রয়েছে। বিনা ভোটে ও ভোট ডাকাতির মাধ্যমে দেশে একদলীয় শাসন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা হয়েছে। দেশের সমগ্র শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গত এক যুগ ধরে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসের অভয়ারণ্যে পরিণত করেছে। দেশের মালিকানা দেশের মানুষের হাতে ফিরিয়ে দেয়া, সাম্য-মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য থেকে মুক্ত করে সাধারণ শিক্ষার্থীদের কল্যাণে কাজ করাই ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শপথ।

১৯৭৯ সালের ১ জানুয়ারি ‘শিক্ষা-ঐক্য-প্রগতি’ এই সেøাগান নিয়ে ছাত্রদল প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎপাদনমুখী শিক্ষাব্যবস্থা ও ছাত্রসমাজের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যের কথা উল্লেখ করে গঠন করা হয় সংগঠনটি।

সংগঠনটির নেতাকর্মীরা জানান, জিয়াউর রহমান যখন বিএনপি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন, তখন ভবিষ্যতের নেতৃত্ব তৈরির জন্য এর একটি ছাত্র সংগঠন প্রতিষ্ঠার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন। তখন অনেক তরুণ অনুপ্রাণিত হয়ে ছাত্রদলে যোগদান করেন। সদ্য প্রয়াত কাজী আসাদকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আহ্বায়ক করে ওইদিন ছাত্রদলের প্রথম কমিটি গঠন করা হয়। কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান আমিন মানবজমিনকে বলেন, স্বৈরাচারী সরকারকে হটিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করাই ছাত্রদলের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। সংগঠনের পুনর্গঠন শেষে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশনায় দুর্বার গণআন্দোলনের মাধ্যমে ক্ষমতাসীন সরকারকে হটিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করাই আজকের ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অঙ্গিকার।