ঘরে বসেই নিয়মিত কার্যক্রম মনিটরিং
থেমে নেই করোনায় আক্রান্ত চসিক প্রশাসক

বাংলাদেশ মেইল :: 

করোনায় আক্রান্ত চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক নিজের ঘরে আইসোলেশনে থেকেও চসিকের বিভিন্ন কার্যক্রম মনিটরিং  করছেন। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অবগত হয়ে আজ শুক্রবার (৮ জানুয়ারি) সকালে সাপ্তাহিক চলমান কার্যক্রমের অংশ হিসেবে চাক্তাই খালের বাদুরতলা হারিছ শাহ্ মাজার সংলগ্ন এলাকা ও ঘাসিয়ার পাড়ার অংশে বর্জ্য, ময়লা-আবর্জনা পরিস্কারে অভিযান চালানোর নির্দেশ দেন। অভিযানে কর্পোরেশনের শতাধিক পরিচ্ছন্ন সেবক-কর্মীর অংশগ্রহণে প্রায় ১’শ ট্রাকের মতো বর্জ্য পরিস্কার করা হয়। পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম চলাকলে দেখা যায় বাদুরতলা হারিছ শাহ্ মাজার সংলগ্ন ও ঘাসিয়ার পাড়ার অংশে চট্টগ্রামের দুঃখ খ্যাত চাক্তাই খালে বর্জ্য, গৃহস্থালি ময়লা-আবর্জনা ও পলিথিন ফেলার কারণে খালটি ময়লার ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে। খালের কোন কোন অংশে বড় বড় কচুরিপানা গজিয়ে উঠেছে, আবার কোথাও বর্জ্য ফেলার কারণে খালটি দেখতে অনেকটা ডাস্টবিন মনে হচ্ছিল। এই ময়লা আবর্জনা খালে ফেলার কারণে পানি চলাচলের প্রবাহ বাধাগ্রস্ত হচ্ছিল দীর্ঘদিন ধরে। আর পানি চলাচলের স্বাভাবিক প্রবাহ বন্ধ থাকায় খালটি মশার উর্বর প্রজনন কেন্দ্রে পরিনত হয়েছে। আজ (শুক্রবার) শতাধিক সেবক, স্কেভেটর ও পে-লোডার দিয়ে আবর্জনা-বর্জ্য পরিস্কার কার্যক্রম শুরু হলে খালের পানি চলাচলের প্রবাহে স্বাভাবিকতা ফিরে আসে। অনেক স্থানে খাল সংযুক্ত নালার আটকে থাকা পানির প্রবাহও ছুটে যায়। ফলে মশার দীর্ঘদিনের আবাসস্থলও ধ্বংস হয়ে যায়। প্রতি শুক্রবার সকালে খাল নালা পরিস্কার পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম সরাসরি তদারকি করা প্রশাসকের নিয়মিত রুটিন ওয়ার্ক হলেও সস্ত্রীক কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন নিজ বাসায় আইসোলেশনে থাকা অবস্থায় খাল পরিস্কারের বিশাল এই কর্মযজ্ঞ ফোনে এবং ওয়াটসআপে ভিডিও কলে তদারকি করেন। তিনি কর্পোরশেনের পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তাদের মাধ্যমে খালের দুইপাশের এলাকার অধিবাসীদের খাল নালায় ময়লা আবর্জনা না ফেলার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, এ শহর আমার আপনার সবার। সবার সম্মিলিত প্রয়াসে এই নগরকে একটি স্বাস্থ্যকর, পরিচ্ছন্ন, নান্দনিক ও মানবিক শহররূপে গড়ে তুলতে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। এর কোন বিকল্প নাই।