আবুধাবিতে “স্রষ্টার প্রতি সৃষ্টির ভালবাসা” শীর্ষক সেমিনার করেছে মুনিরীয়া যুব তবলীগ কমিটি বাংলাদেশ

বাংলাদেশ মেইলঃঃ

 

বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের সকল নিয়মনীতি মেনে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে “স্রষ্টার প্রতি সৃষ্টির ভালবাসা” শীর্ষক সেমিনার করেছে মুনিরীয়া যুব তবলীগ কমিটি বাংলাদেশ ৫৩ নং আবুধাবি শাখা।

বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) রাতে সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাজধানী আবুধাবি সিটিস্থ শাখা কার্যালয়ে আয়োজিত এশায়াত সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন ৫৩ নং আবুধাবি শাখার সহ সভাপতি কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব আলহাজ্ব মুহাম্মদ আবদুস ছবুর। সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ শওকত নোমান এর পরিচালনায় এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের উপদেষ্টা মুহাম্মদ মোরশেদ আলম।”স্রষ্টার প্রতি সৃষ্টির ভালবাসা” শীর্ষক সেমিনারের মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন শাখার সাহিত্য সম্পাদক মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম।

সংযুক্ত আরব আমিরাত এশায়াত উপ পরিষদের সিনিয়র সদস্য ও ৫৩ নং আবুধাবি শাখার এশায়াত সম্পাদক মৌলানা মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম প্রধান বক্তার বক্তব্যে বলেন, আজকের সেমিনারের প্রবন্ধ অত্যন্ত যুগোপযোগী প্রবন্ধ হয়েছে। কেননা যতক্ষণ পর্যন্ত প্রভুর প্রতি বান্দার মোহাব্বত পরিপূর্ণ হবে না এবং সবকিছুর মোহাব্বতের চেয়ে আল্লাহর প্রতি বান্দার মোহাব্বত অগ্রগণ্য ও প্রাধান্য পাবে না, ততক্ষণ পর্যন্ত পরিপূর্ণ ইমানদার হবে না। আর এই আল্লাহ প্রীতিই তার মাঝে শাসন ও কর্তৃত্ব করবে অর্থাৎ বান্দার অন্যসব পছন্দ অপছন্দ হবে আল্লাহর পছন্দ অপছন্দের ভিত্তিতে আর ইহাতে সে সফল ও সার্থক হতে পারবে। তিনি আরো বলেন, আল্লাহর প্রতি বান্দার ভালোবাসার অর্থ হলো অন্তরে তার প্রতি ঘনিষ্ঠতা সৃষ্টি হওয়া ও ধাবিত হওয়া এবং আল্লাহর চাওয়া ও নির্দেশিত বিষয়ের ব্যাপারে ইতিবাচক সাড়া দেওয়া।কিন্তু মানুষের অন্তরে আল্লাহ ও রাসুলের সত্যিকারের প্রেম বর্তমানে বিরল। তবে বিরল এ প্রেমের অন্যতম একটি কারখানা হচ্ছে বর্তমান বিশ্বের অন্যতম, অদ্বিতীয় আধ্যাত্মিক দরবার কাগতিয়া আলীয়া গাউছুল আজম দরবার শরীফ। যে দরবারে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ বাধ্যতামূলক যেটি আল্লাহ প্রেমের প্রথম শর্ত। এছাড়াও ফজরের নামাজ শেষে পবিত্র খতম শরীফ পড়ে শুরু হয় দিনের যাবতীয় কার্যক্রম। দিন শেষে তথা মাগরিবের নামাজ পড়ে পবিত্র ফাতেহা শরীফ আদায়। ঘুমানোর আগে তথা এশার নামাজ পড়ে পবিত্র দরুদ শরীফ পাঠ করে সকল কার্যক্রম শেষ করে ঘুমাতে যাওয়া। গভীর রাতে ঘুম থেকে ওঠে তাহাজ্জুদ ও জিকিরে জলি আদায় করা। প্রত্যেক ওয়াক্ত নামাজের সাথে কমপক্ষে ২ রাকাত তওবার নামাজ আদায় করে অশ্রুসিক্ত নয়নে নিজের গুনাহ ক্ষমা চাওয়া। মহান মোর্শেদে আজম মাদ্দাজিল্লুহুল ছাহেবের কাছ থেকে বিরল কোরআনি ফয়েজ ও তায়াজ্জু গ্রহণ করা। বিরল এবাদত পবিত্র মোরাকাবা আদায় সহ বিভিন্ন রকমের এবাদত ও রেয়াজতের মাধ্যমে নিজের এ দুনিয়াবি ক্ষুদ্র জীবনের আমলকে সমৃদ্ধ করার অনন্য একটি কারখানা হচ্ছে কাগতিয়া আলীয়া গাউছুল আজম দরবার শরীফ। আর দরবারের এসব আমলের মাধ্যমে স্রষ্টার প্রতি সৃষ্টির ভালবাসা জন্ম নেয় বলে মন্তব্য করেন মৌলানা মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম।

সেমিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন ৫৩ নং আবুধাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক, জনপ্রিয় কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব প্রকৌশলী মুহাম্মদ ফরিদ সহ আরো অনেকে।
এছাড়াও সেমিনারে বিভিন্ন অঙ্গনের গন্যমান্য ব্যক্তি বর্গ, প্রবাসী বাংলাদেশি, স্থানীয় ও বিভিন্ন দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে শাখার সদস্য মুহাম্মদ জসিম উদ্দিনের কোরআন তেলেয়াতের মধ্য দিয়ে শুরু হওয়া সেমিনারে পবিত্র নাতে মোস্তাফা পেশ করেন মৌলানা মুহাম্মদ ছালামত উল্লাহ। পবিত্র কছিদা শরীফ পেশ করেন মুহাম্মদ মহিউদ্দিন ও মুহাম্মদ আকবর হোসেন আজম।

সবশেষে মিলাদ-ক্বিয়াম,বিশ্ব মুসলিম উম্মার সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি এবং দরবারের প্রতিষ্ঠাতা হযরত গাউছুল আজম রাদ্বিয়াল্লাহু আন্হুর ফুয়ুজাত ও মহান মোর্শেদে আজমের হায়াতে আবেদী ও শেফায়ে দায়েমি কামনা করে বিশেষ মুনাজাত পরিচালনা করা হয়।