নির্বাচনে নৌকার বিপুল বিজয়ে নতুন মেয়র রেজাউল

বাংলাদেশ মেইল ::

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী। নৌকা প্রতীকে তিনি পেয়েছেন মোট ৩ লাখ ৬৯ হাজার ২৪৮ ভোট। অপরদিকে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির ডা. শাহাদাত হোসেন পেয়েছেন ৫২ হাজার ৪৮৯ ভোট।

বুধবার (২৭ জানুয়ারি) দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে রেজাউল করিমকে মেয়র পদে বেসরকারিভাবে বিজয়ী ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান। তিনি নগরীর এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে স্থাপিত নির্বাচন কমিশনের অস্থায়ী নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে ফল ঘোষণা করছিলেন।

সকাল আটটা থেকে টানা চারটা পর্যন্ত ভোটগ্রহন শেষ হয় বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ আর উৎকন্ঠার মধ্যে। আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী এম রেজাউল করিমের বিজয় সবার কাছে প্রত্যাশিত হলেও ভোটের ব্যবধান বিস্মিত রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মিরা।

দিন শেষে ৩ লাখেরও বেশি ভোটের ব্যবধানে বিএনপির প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেনকে হারিয়ে পাঁচ বছরের জন্য চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) ‘নগরপিতার’ চেয়ারে বসতে যাচ্ছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম চৌধুরী। আলোচনার প্রায় বাইরে থাকা রেজাউল আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে চমক দেখিয়েছিলেন। তবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পরিস্থিতিতে সেই নির্বাচন স্থগিত হয়ে গেলে পরিস্থিতি পাল্টে যায়। মহামারি পরিস্থিতিতে একপর্যায়ে নির্বাচন নিয়েই সংশয় তৈরি হয়।

রিটার্নিং কর্মকর্তা জানান, চট্টগ্রাম সিটির ১৯ লাখ ৩৮ হাজার ৭০৬ জন ভোটারের মধ্যে নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন ৪ লাখ ৩৬ হাজার ৫৪৩ জন। বৈধ ভোটের সংখ্যা ৪ লাখ ৩৫ হাজার ৪৯০। বাতিল হয়েছে ১ হাজার ৫৩ ভোট। ভোটের শতকরা হার ২২ দশমিক ৫২ শতাংশ।

নির্বাচনের মোট ৭৩৫টি কেন্দ্রের মধ্যে স্থগিত থাকা দু’টি কেন্দ্র বাদে ৭৩৩টি কেন্দ্রের ফলে রেজাউল করিম চৌধুরী নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৩ লাখ ৬৯ হাজার ২৪৮ ভোট, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন পেয়েছেন ৫২ হাজার ৪৮৯ ভোট। দু’জনের ভোটের ব্যবধান ৩ লাখ ১৬ হাজার ৭৫৯।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ইতিহাসে মেয়র পদে দায়িত্ব পালন করে গেছেন জাতীয় পার্টির মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী, বিএনপির মীর মো. নাছির উদ্দিন, আওয়ামী লীগের এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী, বিএনপির এম মনজুর আলম ও আওয়ামী লীগের আ জ ম নাছির উদ্দীন। এদের মধ্যে এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হন। পরপর তিন দফা নির্বাচিত হয়ে তিনি ১৭ বছর দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি খোরশেদ আলম সুজন চসিকের প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।