বান্দরবান পৌরসভা নির্বাচনে নৌকা বিজয়ী: ১২জন কাউন্সিলর প্রার্থী জয় লাভ

বাংলাদেশ মেইলঃঃ

বান্দরবান গেল কয়েকদিন আগে পৌর নির্বাচনকে ঘিরে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীসহ বেশ জমজমাট হয়ে উঠে শহরে অলিতে গলিতে। আজ সেই জাকজমক ঘিরে সম্পন্ন হল পৌরসভা নির্বাচন।

আজ ১৪  ফেব্রুয়ারী রবিবার পৌর নির্বাচন শুরু হয় সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভাবে।

যা সকাল সাড়ে ৮টা হতে ভোট কেন্দ্রে  নারী পুরুষসহ ভোটারদের অংশগ্রহন ছিল বেশ চোখে পড়া মত। তবে সকাল হতে ভোটার ছিল বেশ দেখার মত। কিন্তু দুপুর দিকে কিছুটা ভোটারে সংখ্যা কমলেও  বিকাল দিকে আরো জমে ভোটারে সংখ্যা।

তবে প্রথম বাড়ে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহন হওয়ার কারনে কিছুটা বিকাকে পড়েন বয়স্করা।

এই দিকে জেলায় অপ্রীতিকর বা বিচ্ছিন্ন কোন ঘটনা ছাড়ায় সম্পপ্ন হয়েছে ভোট গ্রহন ও নির্বাচনী ফলাফল। নির্বাচজনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক নিয়ে ৯ হাজার ৫৬১ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় বারের মতো মেয়র পদে নির্বাচিত হয়েছেন জন্য মোহাম্মদ ইসলাম বেবী।

পাশাপাশি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল- বিএনপি প্রার্থী ধানের শীষে প্রতীকের মোহাম্মদ জাবেদ রেজা ভোট পেয়েছেন ৪ হাজার ৫৩৩ ভোট।

এছাড়া ও  পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক বিষয়ক নারিকেল গাছের প্রতীক মোঃ নাছির উদ্দীন ভোট পেয়েছেন ২ হাজার ১৪৭ ভোট, জাতীয় পার্টি লাঙ্গল প্রতীক মোঃ শাহজাহান ৯শত ৮৫ ভোট,স্বতন্ত্র প্রার্থী মোবাইল ফোন প্রতীকের প্রার্থী বিধান লালা ১শত ৩২টি ভোট পেয়েছে। এবং মোট ১৩ টি কেন্দ্রের জয় পেয়েছে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী। এই নিয়ে জেলায় পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র ও কাউন্সিলয় প্রার্থীসহ মোট জয় লাভ করেন ১৩ জন প্রার্থী।

নির্বাচিত প্রার্থীরা হলেন,১নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী নাছির উদ্দীন, ২নং ওয়ার্ডের মোহাম্মদ আলী, ৩ নং ওয়ার্ডের আজিত কান্তি দাশ, ৪নং ওয়ার্ডের ওমর ফারুক, ৫নং ওয়ার্ডের মং মং সিং মার্মা, ৬নং ওয়ার্ডের সৌরভ দাশ শেখর, ৭নং ওয়ার্ডের মোঃ হারুন সরদার, ৮নং ওয়ার্ডের মোঃ কামরুল হাসান বাচ্চু, এবং ৯নং ওয়ার্ডের মোঃ সেলিম।

এছাড়া সরক্ষিত মহিলা আসনে নির্বাচিত হয়েছেন,১,২,৩নং ওয়ার্ডের দিপিকা তংচগ্যা, ৪,৫,৬ নং ওয়ার্ডের এমেচিং মার্মা  এবং ৭.৮.৯ নং ওয়ার্ডে বেসরকারিভাবে জয় লাভ করেন শাহানারা আক্তার।

এই নির্বাচনে  আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশের পাশাপাশি ছিল র‍্যাব,বিজিবি, আনসার,গোয়েন্দা শাখায় সদস্য নিয়োজিত ছিল। তবে নির্বাচনে প্রত্যেকটি কেন্দ্রে জুডিসিয়াল ও নির্বাহী মেজিস্ট্রেট সহ মোট ১১ জন মেজিস্ট্রেট ১৩ টি কেন্দ্রে পরিদর্শন করেন।

এইদিকে নির্বাচনে মোট ১৩ টি কেন্দ্রে  ৮১ জন সরকারি প্রিজাইডিং অফিসার ও ১শত ৬২ জন পোলিং এজেন্টের দায়িতা পালন করেন।