বিরামপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর হামলা গ্রেফতার-২

বাংলাদেশ মেইলঃঃ

 

বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি-
বিরামপুর উপজেলার কাটলা বাজারে এক প্রয়াত বীরমুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর হামলা চালিয়ে ইটের দেওয়াল, দরজা, টিন, বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর ও মুক্তিযোদ্ধার মেয়ে, স্ত্রী ও জামাইকে মারপিট করায় দুই নারীকে আটক করে গতকাল শনিবার (২০ফেব্রুয়ারি) দিনাজপুর আদালতে সোপর্দ করেছে বিরামপুর থানা পুলিশ।

মামলা সূত্রে প্রকাশ- উপজেলার কাটলা বাজারস্থ প্রয়াত বীরমুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমানের পরিবারের উপর প্রতিপক্ষরা পূর্ব থেকে শত্রুতা করে আসছিলো। এর ধারাবাহিকতায় শুক্রবার বিকেলে তফিজ উদ্দিন, তাছির উদ্দিন, লাইলী বেগম, লিলি বেগম, কামরুল ও ইসমাইল মেম্বার সংঘবদ্ধ হয়ে বে-আইনী ভাবে প্রয়াত বীরমুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমানের বাড়ির উপর চড়াও হয়ে ইটের দেওয়াল,জালানা, দরজা, বসত বাড়ির টিন, বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর করে লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি করে। এসময় বাধা দিতে গেলে বীরমুক্তিযোদ্ধার মেয়ে শাহানারা পারভীনকে (৩২) আসামীগণ লোহার রড ও বাঁশের লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারপিট করে কাঁধের হাড় ভেংগে দেয়। বীরমুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী রাহেনা বিবি ও জামাই মুকুল সরকারকে এলোপাথাড়ি মারপিট করে এবং নারীদের শ্লীলতাহানী করে। এঘটনায় প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধার জামাই মুকুল সরকার বাদী হয়ে শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) থানায় মামলা করেছেন।

এ ব্যাপারে বিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার (ভারঃ) পরিমল কুমার সরকার জানান- আমি ঘটনার বিষয় শুনেছি এবং থানা পুলিশকে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য বলা হয়েছে।

বিরামপুর থানার ওসি (তদন্ত) মতিয়ার রহমান জানান- মামলার পর তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে এজাহার ভুক্ত দুই নারী আসামী লাইলী বেগম ও লিলি বেগমকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা থানার উপ-পরিদর্শক এরশাদ মিয়া জানান-আটক দুই নারী আসামীকে শনিবার দিনাজপুর আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে এবং অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।