টেকনাফ থেকে দশ কোটি টাকা মুল্যের ক্রিস্টাল আইস উদ্ধার

বাংলাদেশ মেইল ::

দেশে নতুন প্রচলিত মাদক ক্রিস্টাল আইসসহ এক রোহিঙ্গাকে আটক করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর। এ সময় তার কাছ থেকে দুই কেজি ক্রিস্টাল আইস জব্দ করা হয়। যার আনুমানিক বাজারমূল্য প্রায় ১০ কোটি টাকা। বুধবার রাতে টেকনাফের জাতিমোরা এলাকা থেকে এসব মাদক উদ্ধার করা হয়।

ক্রিস্টাল আইস বা মিথাইল অ্যামফিটামিনসহ সম্প্রতি বাংলাদেশে প্রচলিত মাদকের তালিকায় যুক্ত হয়েছে। চট্টগ্রাম নগরীতেও একই ধরনের মাদক উদ্ধার করা হয়েছিল গত মাসে।

বুধবার (৩ মার্চ) রাতে টেকনাফ থেকে ক্রিস্টাল আইস উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চত করেছেন  মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের সহকারী পরিচালক মেহেদী হাসান।

তিনি বলেন, ‌‘মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের টেকনাফ জোনের সহকারী পরিচালক সিরাজুল মোস্তফার নেতৃত্বে বুধবার জাদিমোরা রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অভিযান চালিয়ে দুই কেজি ক্রিস্টাল আইসসহ এক রোহিঙ্গাকে আটক করা হয়। তবে এ সময় একজন পালিয়ে যায়। তাকে ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।’

বহুল প্রচলিত মাদক ইয়াবায় এমফিটামিন থাকে পাঁচ ভাগ আর ক্রিস্টাল মেথ বা আইসের পুরোটাই এমফিটামিন।তাই এটি ইয়াবার চেয়ে অনেকগুণ বেশি ক্ষতিকর মাদক। ইয়াবার চেয়ে অনেক বেশি পরিমাণ প্রতিক্রিয়া তৈরি করে মানবদেহে।

মাদকাসক্তি বিষয়ক গবেষক ও ঢাকার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক এমদাদুল হক বলছেন, ইয়াবা বা হেরোইন হল ওপিয়ামের বাইপ্রডাক্ট।

“এগুলো থেকেই প্রসেস করে এখন নতুন নতুন মাদক তৈরি হচ্ছে। আইসও এমন একটি নতুন মাদক।”

তিনি বলেন, মিয়ানমার ও ভারতের বাইরে থেকেও কিছু লোক এর বিস্তারে কাজ করছে। আফ্রিকান অঞ্চলে এর নেটওয়ার্ক আছে।