হাতির আক্রমণে প্রাণ গেল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর

বাংলাদেশ মেইলঃঃ

রাঙ্গামাটির কাপ্তাইয়ে বেড়াতে এসে বন্য হাতির আক্রমণে প্রাণ হারাল ঢাকা তেজগাঁও টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ইউনিভার্সিটির দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী অভিষেক পাল (২১)।

বৃহস্পতিবার (১১ মার্চ) সকাল সোয়া ৯টায় কাপ্তাই-রাঙামাটি আসামবস্তি প্রধান সড়কের কামাইল্যাছড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
নিহত অভিষেকের বাবা সুধাংশু বিকাশ পাল চট্টগ্রাম ইপিজেড এক্সপোর্ট প্রসেসিং জোনে চাকরি করেন বলে জানা যায়। তাদের দেশের বাড়ি নোয়াখালী বসুরহাট পৌরসভার এলাকায়।
নিহত অভিষেকের কাপ্তাই সফর সঙ্গী বন্ধু শাহরিয়া, সৌয়েভ, সাদমান সোবহান উদয়, দেবজীত দে, মাহমুদুর রহমান বলেন, ‘তারা ছয় বন্ধু আজ (১১ মার্চ) সকাল ৯টায় কাপ্তাই প্রশান্তি পার্ক থেকে রাঙামাটির উদ্দেশে সিএনজি যোগে যাত্রা শুরু করেন। সকাল সোয়া ৯টায় কামাইল্যাছড়ি এলাকায় দুইটি হাতির মুখোমুখি হয়। তার বন্ধু অভিষেক বনের দিকে দৌঁড়ে পালানোর সময় একটা হাতি তাকে পিষ্ট করে। পরে ফায়ার সার্ভিসকর্মী ও স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতার গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে কাপ্তাই উপজেলা সদর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে নিয়ে আসার সময় তার হয়।’
কাপ্তাই স্বাস্থ্য বিভাগের চিকিৎসক ডাক্তার মিনহাজুল ইসলাম জানান, হাসপাতালে আসার আগে তার মৃত্যু হয়েছে।
বন বিভাগের কাপ্তাই রেঞ্জের কর্মকর্তা মহসিন তালুকদার জানান, গত ৭ মার্চ একই এলাকায় হাতির আক্রমণে একজন প্রতিবন্ধীর মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও ডংনালা এলাকায় বন্য হাতির আক্রমণে মিনুপ্রু মারমাও (৪৫) গুরুতর আহত অবস্থায় কাপ্তাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিল।
কাপ্তাই থানার ওসি মো. নাসির উদ্দীন জানান, এ ঘটনায় পরবর্তীতে আইনগত প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মৃতদেহটি তার বাবা শুধাংশু বিকাশ পালের কাছে বিকেল ৩টার দিকে হস্তান্তর করা হয়েছে।
এদিকে, বৃহস্পতিবার সকালে নিহতের মরদেহের খোঁজখবর নিয়ে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য উপজেলা সদর হাসপাতালে ছুটে যান কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুনতাসির জাহান, পার্বত্য চট্টগ্রাম দক্ষিণ বন বিভাগের ডিএফও রফিকুজ্জামান শাহ, কাপ্তাই থানার ওসি মো. নাসির উদ্দীন।