সাল্লায় সংখ্যালঘুদের উপর হামলার ঘটনায় বিএনপি মহাসচিবের উদ্বেগ প্রকাশ

বাংলাদেশ মেইলঃঃ

 

সুনামগঞ্জ জেলাধীন সাল্লায় উপজেলার হবিপুর ইউনিয়নের নববি গ্রামে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বাড়ীঘরে হামলা ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এক বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব বলেন, “বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। বাংলাদেশের মানুষ ধর্ম নিয়ে কোন হানাহানিতে বিশ্বাসী নয়। যুগ যুগ ধরে এদেশে সকল ধর্মের মানুষ কোন ধরণের বিভেদ ছাড়াই নিজ নিজ ধর্মীয় অনুষ্ঠানাদি পালন করে আসছে এবং পারস্পারিক ভ্রাতৃত্বের মধ্য দিয়ে বসবাস করছে। সরকারের পক্ষ থেকে বারবার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির কথা বলা হলেও এই সরকারের আমলে সংখ্যালঘুদের ওপর আক্রমণের মাত্রা সীমাহীন পর্যায়ে পৌঁছেছে।

আওয়ামী সরকার যখনই ক্ষমতায় আসে সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতনের মাত্রা বেড়ে যায়। বেশ কয়েক বছর ধরে ক্ষমতাসীন দলের লোকদের দ্বারা সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা, বাড়ীঘর ও দেবালয়ে অগ্নিসংযোগ, সম্পত্তি দখল ইত্যাদির হিড়িক চলছে। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল সুনামগঞ্জ জেলাধীন সাল্লায় উপজেলার হবিপুর ইউনিয়নের নববি গ্রামে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বাড়ীঘরে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা কোন অশুভ উদ্দেশ্য নিয়ে সংঘটিত হয়েছে কী না তা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। এই ঘটনা এক অশনি সংকেত। এদেশের জনগণ এখন ভয়ংকর দু:সময়ের মধ্যে দিনাতিপাত করছে। ভয়াল পরিবেশের কারণে এদেশে মানুষের ধর্মীয় স্বাধীনতা বিপন্ন হয়ে পড়েছে। সরকার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা করতে পারেনি এবং তাদের নিরাপত্তাও দিতে ব্যর্থ হয়েছে। আওয়ামী সরকার বিরোধী মত ও দলের নেতাকর্মীদের দমন ও নির্যাতনে ব্যস্ত থাকার কারণে সাধারণ মানুষের জান-মালের নিরাপত্তার বিষয়ে সম্পন্ন উদাসীন বিদায় একের পর এক নিরীহ মানুষের উপরে হামলা, নির্যাতন ও জুলুম অব্যহত রয়েছে।

ঐক্যবদ্ধ জনগণের প্রবল সাহসের কাছে কখনোই কোন অশুভ শক্তির উত্থান সম্ভব নয়। এদেশের সকল সম্প্রদায়কে যেকোন উস্কানির মুখে বিভ্রান্ত না হয়ে সাম্প্রদায়িক ঐক্য বিনষ্টকারি দুস্কৃতিকারিদের বিরুদ্ধে এখনই প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। যারা সংখ্যালঘুদের ওপর নির্মম হামলা চালাচ্ছে তারা মানবজাতির শত্রু।

আমি গতকাল সুনামগঞ্জ জেলাধীন সাল্লায় উপজেলায় দুস্কৃতিকারীদের কর্তৃক হিন্দু সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাড়ীঘরে ভাংচুর করার ঘটনায় নিন্দা জানাচ্ছি। অবিলম্বে হিন্দু সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাড়ীঘরে হামলাকারীদের গ্রেফতার এবং শাস্তির জোর দাবি করছি।