সাতক্ষীরায় মোদীর নিরাপত্তায় ১৫০০ পুলিশ

বাংলাদেশ মেইল ::

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আগমন উপলক্ষে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গড়ে তোলা হয়েছে সাতক্ষীরায় । এজন্য অন্যান্য সংস্থার পাশাপাশি বাংলাদেশ পুলিশের ১৩শ’ সদস্য নিয়োজিত থাকবে। এছাড়া সাদা পোশাকে কাজ করবে আরও ২শ’ পুলিশ সদস্য।

শুক্রবার (২৬ মার্চ) বিকেলে জেলার শ্যামনগরের মুহাসীন কলেজ মাঠে নিরাপত্তা বিষয়ক সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।এতে বলা হয়, রাষ্ট্রীয় অতিথির সফর নির্বিঘ্ন করতে বাংলাদেশ পুলিশের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সফরস্থলসহ সংলগ্ন এলাকার সম্ভাব্য ঝুঁকি চিহ্নিতকরণ ও ম্যাপ প্রস্তুত করা হয়েছে। প্রত্যেকটি বাড়ির সদস্য সংখ্যাসহ বিবরণী তৈরি করা হয়েছে। হেলিপ্যাড ও মন্দিরসহ এর চারপাশের পাঁচ কিলোমিটার এলাকা সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়েছে। যা প্রতিনিয়ত দু’টি কন্ট্রোল রুম থেকে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। এছাড়া সাতক্ষীরাজুড়ে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

সম্মেলনে পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশ্যে সর্বোচ্চ পেশাদারিত্ব বজায় রাখার নির্দেশনা দিয়ে বলা হয়, রাষ্ট্রীয় অতিথি অর্থাৎ ভিভিআইপির সফরে দায়িত্ব পালনে ন্যূনতম অবহেলা ছাড় দেওয়া হবে না। যৌক্তিক কারণ থাকলে তাকে ছুটি দেওয়া হবে। কিন্তু স্টেশনে থাকলে তাকে শতভাগ দায়িত্ব পালন করতে হবে।

সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে পুলিশ সদস্যদের দায়িত্বও তদারকি করা হচ্ছে উল্লেখ করে সম্মেলনে আরও বলা হয়, কারো গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হলে তাকে তাৎক্ষণিক সরিয়ে নেওয়া হবে। দায়িত্ব পালনকালে স্বাস্থ্যগত কোনো সমস্যা দেখা দিলে সঙ্গে সঙ্গে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

সম্মেলনে সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি ড. খ. মহিদ উদ্দীন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত উপ- মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) নজরুল ইসলাম।

এছাড়া খুলনা বিভাগে পুলিশের কর্মরত বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা এসময় উপস্থিত ছিলেন।

শনিবার (২৭ মার্চ) সকালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সাতক্ষীরার শ্যামনগরের যশোরেশ্বরী কালী মন্দির পরিদর্শন করবেন।