দূর্ভোগ সাধারন মানুষের হাটহাজারী যেন হেফাজতের তালুক

বাংলাদেশ মেইল ::

হরতালে হাটহাজারী উপজেলার সাধারন মানুষের ভোগান্তি আরো বেড়েছে। যান চলাচল,  দোকানপাট বন্ধ থাকার কারনে একপ্রকার অসহনীয় দূর্ভোগ নেমে এসেছে জনজীবনে।

হাটহাজারীত হাটহাজারী – খাগড়াছড়ি সড়কের দুটি স্থানে খুঁড়ে ফেলেছে হেফাজতকর্মীরা। এই সড়কে যান চলাচল এখনো বন্ধ রয়েছে। মাদ্রাসার সামনে সড়কের ওপর ইটের স্তূপ দিয়ে তৈরি দেয়াল এখনো রয়েছে। হাটহাজারী মাদ্রাসার  ছাত্ররা গতকাল  রাতে মাদ্রাসায় ঢুকে পড়লেও আজ রোববার সকাল থেকে ছাত্ররা মাদ্রাসার সামনে আবারো জড়ো হয়ে এখনো অবস্থান করছে। সাধারণ মানুষদের অনেককেই বলতে দেখা যায় ‘হাটহাজারী হেফাজতের তালুক ‘।

পৌর এলাকার ছোট ছোট রাস্তায় গাড়ি চললেও মহাসড়কে রাস্তায় গাড়ি নেই বললেই চলে । এছাড়া আজ সকালে হাটহাজারী-রাঙামাটি সড়কের ইছাপুরে হেফাজত ইসলামের কর্মীরা ব্যারিকেড দিলে পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা তা তুলে দেন।

ভূমি অফিসের সামনের সড়ক খুঁড়ে ফেলা হয়েছে। সড়কে আড়াআড়িভাবে রাখা হয়েছে সিমেন্টের ইলেকট্রিক পিলার। হরতাল ঠেকাতে এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় গেইট ও বাসস্ট্যান্ড মোড়ে অবস্থান নিয়েছে ছাত্রলীগ যুবলীগ আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীরা।

গত শুক্রবার বেলা আড়াইটা থেকে বন্ধ রয়েছে হাটহাজারী-খাগড়াছড়ি সড়ক। সড়কটি বন্ধ থাকায় দুর্ভোগে পড়েছে যাত্রীরা। দুপাশে আটকা রয়েছে মালবাহী ট্রাক। বিকল্প সড়ক দিয়ে লোকজনকে গন্তব্যে পৌঁছাতে হচ্ছে। ভোগান্তিতে পড়ছে নারী, শিশু ও বৃদ্ধরা।
বাজার এলাকায় দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। সেখানে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। অতিরিক্ত আড়াই শ র‍্যাব, পুলিশ ও বিজিবির সদস্যরাও মডেল মডেল থানা সড়কে অবস্থান করছে। তাঁরা বিভিন্ন জায়গায় টহল দিচ্ছেন।
তাছাড়া গতকাল শনিবার রাত ৮ টার দিকে বিক্ষোভকারীরা ডাকবাংলোতে আগুন দিলে ফায়ারসার্ভিস কর্মীরা তাৎক্ষনিক এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।