করোনাকালে আ. লীগ ছাড়া আর অন্য কোন দল মানুষের পাশে নেই – তথ্যমন্ত্রী

বাংলাদেশ মেইল ::

গত বছর করোনা মহামারি দেখা দেওয়ার পর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গরীব অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আহ্বান জানিয়েছিলেন। প্রধানমন্ত্রী আহবানে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সারাদেশব্যাপী প্রথম দফায় ১ কোটি ২৫ লাখ পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছিল। রাঙ্গুনিয়ায় আমার ব্যক্তিগত উদ্যোগে এনএনকে ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে প্রথম দফায় ২০ হাজারের বেশি মানুষকে ত্রাণ পৌঁছে দেওয়া হয়। এছাড়া নগদ টাকাও বিতরণ করা হয়েছিল। আমার নিজ এলাকার অনেক নেতাকর্মীরা তাদের ব্যক্তিগত উদ্যোগে প্রাণ ও নগদ অর্থ নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন।

শনিবার (২৪ এপ্রিল) সকালে ইছাখালী নূরজাহান কমিউনিটি সেন্টারে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী পারিবারিক প্রতিষ্ঠান এনএনকে ফাউন্ডেশনের সার্বিক ব্যবস্থাপনায়
রাঙ্গুনিয়ার হতদরিদ্র ও কর্মহীন ২ হাজার জনসাধারণের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে রাজধানীর সরকারি বাসভবন থেকে ভার্চ্যুয়ালী সংযুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ‘এবার দ্বিতীয় দফায় করোনা মহামারীর মধ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আবারও সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াতে দলীয় নেতাকর্মীদের আহবান জানিয়েছেন। তাঁর সে আহবানে সাড়া দিয়ে সমস্ত দেশে আওয়ামী নেতৃবৃন্দ সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ত্রাণ তৎপরতা শুরু করেছেন। আওয়ামী লীগ জনগণের পাশে দাড়িয়েছে বলে আওয়ামী লীগের ৮১ জন সদস্যের মধ্যে ৫ জন করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন এবং ১১০ জন সংসদ সদস্য, মন্ত্রীসভার এক তৃতীয়াংশ করোনা আক্রান্ত্র হয়েছেন। মাঠ পর্যায়ের হাজার হাজার নেতাকর্মী করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন। অন্য কোন দল এভাবে মানুষের পাশে না দাড়িয়ে তারা এখনও সরকারের সমালোচনায় ব্যস্ত।’

তিনি আরও বলেন, ‘এবার দ্বিতীয় দফায় করোনা মহামারীর মধ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আবারও সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াতে দলীয় নেতাকর্মীদের আহবান জানিয়েছেন। তাঁর সে আহবানে সাড়া দিয়ে সমস্ত দেশে আওয়ামী নেতৃবৃন্দ সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ত্রাণ তৎপরতা শুরু করেছেন। আওয়ামী লীগ জনগণের পাশে দাড়িয়েছে বলে আওয়ামী লীগের ৮১ জন সদস্যের মধ্যে ৫ জন করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন এবং ১১০ জন সংসদ সদস্য, মন্ত্রীসভার এক তৃতীয়াংশ করোনা আক্রান্ত্র হয়েছেন। মাঠ পর্যায়ের হাজার হাজার নেতাকর্মী করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন। অন্য কোন দল এভাবে মানুষের পাশে না দাড়িয়ে তারা এখনও সরকারের সমালোচনায় ব্যস্ত।

খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে আরো যারা বক্তব্য দেন এনএনকে ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্টাতা চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ, রাঙ্গুনিয়া পৌরসভার মেয়র মো. শাহজাহান সিকদার, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম তালুকদার, এনএনকে ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা আবদুর রউফ মাস্টার, জসিম উদ্দিন তালুকদার, এমরুল করিম রাশেদ, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শামসুদ্দোহা সিকদার আরজু, বদিউল খায়ের লিটন চৌধুরী প্রমুখ।

এদিন রাঙ্গুনিয়া পৌরসভা, পোমরা, হোছনাবাদ, মরিয়মনগর, চন্দ্রঘোনা ও স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়ার ২ হাজার দরিদ্র মানুষকে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছিল। পর্যায়ক্রমে প্রতিটি ইউনিয়নে আরও মানুষকে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হবে বলে জানানো হয়।