চট্টগ্রামে লকডাউন কার্যকরে এএসপির ‘গান্ধীগিরি’ কৌশল!

দেলোয়ার হোসাইন রোশাই, রাঙ্গুনিয়া 

টানা লকডাউনের দ্বিতীয় সপ্তাহে এসে চট্টগ্রামের রাস্তায় ক্রমেই বাড়ছে যানবাহনের সংখ্যা। পরিস্থিতি মোকাবেলায় গেল কয়েকদিন ধরে মামলা-জোরজবরদস্তির বদলে অহিংস ‘গান্ধীগিরি’কেই দাওয়াই মানছেন চট্টগ্রামের সহকারী পুলিশ সুপার (রাঙ্গুনিয়া-রাউজান সার্কেল) মো. আনোয়ার হোসেন শামীম।

ঘটনা চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ার। সারাদেশের মতো করোনা সতর্কতায় লকডাউন চলছে এখানেও। কিন্তু লকডাউনের দ্বিতীয় সপ্তাহে এসে রাস্তার মোড়ে মোড়ে পুলিশ উপস্থিতি, নজরদারি-মামলা, এসবের সঙ্গে যেন অভ্যস্ত হয়ে গিয়েছেন সবাই। লকডাউন ভেঙ্গে বাড়ির বাইরে বের হবার প্রবণতাও বাড়ছে ক্রমশই। আবার এ কাজ করতে গিয়ে রাস্তার মোড়ে থাকা দায়িত্বরত পুলিশের কাছে ধরাও পড়ছেন আইনভঙ্গকারীরা।

কিন্তু ধরা পড়ার পর তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের পরিবর্তে তাদেরকে লকডাউন মেনে চলা এবং ঘরে থাকার গুরুত্ব সম্পর্কে বুঝিয়ে বাড়ি ফেরত পাঠানোর নীতি নিয়েছেন সার্কেল এএসপি আনোয়ার হোসেন শামীম’র নেতৃত্বাধীন পুলিশ ফোর্স। শুধু তাই নয়, বাড়িতে গিয়ে তারা যেন পরিবারের অন্য সদস্যদেরকেও ঘরে থাকতে বলেন, সেই পরামর্শও দেওয়া হচ্ছে পুলিশের তরফ থেকে। অবশ্য পুলিশ সূত্র জানায়, শুধু বুঝিয়ে বাড়ি পাঠানোই নয়, বাইরে আসা যানবাহনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন কারণে মামলাও করা হচ্ছে নিয়মিত। অননুমোদিত দোকানপাট বন্ধেও নেওয়া হচ্ছে ব্যবস্থা।

কিন্তু সবকিছু ছাপিয়ে সবার নজর কেড়েছে কোনরকম বল প্রয়োগ না করে অহিংস উপায়ে পুলিশের লকডাউন কার্যকরের এই চেষ্টা। পুলিশের অভিনব এই কৌশল প্রশংসা কুড়াচ্ছে স্থানীয় বাসিন্দাদেরও।