৪ % শতাংশ টাকায় টেন্ডার নিষ্পত্তি
গণপূর্ত অধিদফতরে ঠিকাদারকে মারধরের অভিযোগ সমিতির সভাপতির বিরুদ্ধে

বাংলাদেশ মেইল ::

চট্টগ্রামে গণপূর্ত অধিদপ্তরের তালিকাভুক্ত এক ঠিকাদারকে মারধর ও হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে গণপূর্ত ঠিকাদার সমিতির সভাপতি রাশেদুল আলমের বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে কোতোয়ালি থানায় সাধারণ ডায়েরি দায়ের করেছেন সফিউদ্দিন বাপ্পি নামের এক ঠিকাদার। মঙ্গলবার (৪ মে) এ সাধারণ ডায়েরি করেন তিনি। যার নং -২০১।

জিডিতে ঠিকাদার সমিতির সভাপতি রাশেদুল আলমের বিরুদ্ধে চাঁদা দাবি, হুমকি প্রদান ও মারধরের অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী ঠিকাদার সফিউদ্দিন।

সাম্প্রতিক সময়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ওটিএম (ওপেন টেন্ডার মেথোর্ড) টেন্ডার নিয়ে বাগবিতণ্ডার সুত্র ধরে এসব করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

ভুক্তভোগী মেসার্স জে.এস কর্পোরেশনের স্বত্ত্বাধিকারী সফিউদ্দিন বাপ্পী অভিযোগ করেছেন, ঠিকাদার সমিতির সভাপতি রাশেদুল আলম গণপূর্ত অধিদফতরের আশপাশে না যেতে আমাকে হুমকি দিয়েছেন। এরপরও মঙ্গলবার দুপুর বারোটার দিকে রহমতগঞ্জের গণপূর্ত অধিদফতর কার্যালয়ে কাজের বিল তুলতে গেলে সভাপতি ও তার লোকজন নিয়ে আমাকে মারধর করে। এ সময় গণপূর্ত ভবনের সামনে কালো একটি নোহা গাড়িতে সন্ত্রাসীরা অবস্থান নিয়ে আমাকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে।

তিনি বলেন, সিনিয়র ঠিকাদাররাও সভাপতিকে নিয়ে আতঙ্কে রয়েছেন। তাকে ৪% টাকা না দিলে কেউ কাজ নিতে পারে না। এ ব্যাপারে গণপূর্ত অধিদফতরের প্রধান নির্বাহীকে অভিযোগ করার কথাও জানান তিনি।

কি কারনে দ্বন্দ এমন প্রশ্নের উত্তরে সফি বলেন , চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের সাম্প্রতিক সংঘর্ষের পরে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আ জ ম নাসির উদ্দিনের অনুসারীদের কেউ গণপূর্তে কাজ করতে পারবে না, এমন ঘোষণা দেয়া হয়েছে। আমাকেও গণপূর্তে না আসার কথা জানিয়ে দেয়া হয়েছে। ‘

জানা যায় গণপূর্ত অধিদফতরের আলোচিত ঠিকাদার জি কে শামীম গ্রেফতার হবার পরে চট্টগ্রাম গণপূর্ত অধিদফতরের ঠিকাদার সিন্ডিকেট পরিবর্তিত হয়। কানাডা থেকে এসে ঠিকাদার সমিতির সভাপতি হন রাশেদুল আলম।