জেলা প্রশাসনের অভিযানের প্রথম দিনে ৬ রেস্টুরেন্টকে অর্থদণ্ড

বাংলাদেশ মেইল ::

 

স্বাস্থ্য বিধি প্রতিপালন ও নির্দেশনা অনুযায়ী রাত আটটার পর থেকে সকল দোকানপাট বন্ধ রাখতে বুধবার সন্ধ্যা সাতটা থেকে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়েছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন।

জেলা প্রশাসনের ৬ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এর নেতৃত্বে  মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়।
অভিযানে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক কাজির দেউরি ও ২ নাম্বার গেইটে অভিযান চালিয়ে ২ নাম্বার গেইটে সুলতান ডাইন কে ২০০০,বারকোড রেস্টুরেন্টকে ১০০০ টাকা,লাইকি রেস্টুরেন্ট কে ১০০০ টাকা, রয়াল হাটকে ১০০০ টাক, দারুল কাবাবকে ৫০০ টাকা অর্থদণ্ড করেন।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী লাল খান বাজার এলাকার একটি রেস্টুরেন্টকে ১০০০ টাকা অর্থদণ্ড করেন। সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোজাম্মেল হক আগ্রাবাদ এলাকায়,
মাসুমা জান্নাত জি ই সি মোড় মামনুন আহমেদ অনিক ২ নং গেট ও মুরাদ পুর, ও ইনামুল হক খুলশি এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক বলেন, ইদানীং চট্টগ্রামে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার বেড়ে চলছে।যার ফলে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে জেলা প্রশাসনের ১২ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এর নেতৃত্বে প্রতিদিন মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হবে। গতকাল জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভায় বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সকল পর্যটন কেন্দ্র, রিসোর্ট, কমিউনিটি সেন্টার ও বিনোদন কেন্দ্র বন্ধ থাকবে।জন সমাবেশ হয় এ ধরনের সামাজিক, রাজনৈতিক ও ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান বন্ধ থাকবে।আবাসিক হোটেল, রেস্তোরাঁ ও খাবার দোকানসমূহ সকাল ৬টা   থেকে রাত ৮টা ঘটিকা পর্যন্ত খাদ্য সরবরাহ ও অর্ধেক আসনে সেবাগ্রহীতাকে সেবা প্রদান করবে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে গতকাল থেকে জেলা ও উপজেলায় মানুষের মাধ্যে বিনামূল্যে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করা হচ্ছে। জনগণের স্বাস্থ্য সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে জেলা ও মহানগর এলাকায় মাইকিং ও লিফলেট বিতরণসহ ব্যাপক প্রচার প্রচারণা করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, আগামীকাল থেকে ৮টার পর খোলা থাকলে প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যাবস্থা নেয়া হবে।