জ্বর হলেই করোনার পাশাপাশি করাতে হবে ডেঙ্গু পরীক্ষা

খুলনা বিভাগে

বাংলাদেশ মেইল:

দেশে নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ পরিস্থিতিতে যদি কারও উপসর্গ হিসেবে জ্বর থাকে তবে করোনার পাশাপাশি ডেঙ্গু পরীক্ষা করারও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

সোমবার (১২ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অসংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির লাইন ডিরেক্টর ও মুখপাত্র অধ্যাপক ডা. রোবেদ আমিন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

অধ্যাপক রোবেদ আমিন বলেন, ডেঙ্গু রোগ হয়ে থাকে এডিস মশার কামড়ে। এটি সাধারণত দিনের বেলায় কামড় দেয়। সেজন্য দিনে ঘুমালেও মশারি টানিয়ে ঘুমাতে হবে। বর্তমানে অনেক কারণেই জ্বর হতে পারে। একদিকে করোনার উপসর্গ আবার ডেঙ্গুর উপসর্গও কিন্তু জ্বর। আর তাই জ্বর আসলে কোনোভাবে অবহেলা করা ঠিক হবে না।

তিনি বলেন, দেশে বর্তমানে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব বাড়ার প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। এই অবস্থায় জ্বর নিয়ে কোনো রোগী হাসপাতালে এলেই তাকে করোনার নমুনা পরীক্ষার পাশাপাশি ডেঙ্গুর পরীক্ষাও করতে হবে। এ বিষয়ে দেশের সব সরকারি হাসপাতালের পরিচালক, সিভিল সার্জন, তত্ত্বাবধায়ক ও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টদের কাছে নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, সরকারের তরফ থেকে করোনাভাইরাস ও ডেঙ্গু— দুটো পরীক্ষাই বিনামূল্যে করা হচ্ছে। তাই সাধারণ মানুষের কাছেও আমাদের নির্দেশনা হলো— জ্বর হলেই এই দুটো পরীক্ষা অবশ্যই করাবেন।

ডা. রোবেদ আমিন বলেন, ডেঙ্গু পরীক্ষার জন্য দেশের সব জেলা-উপজেলা হাসপাতাল, সিভিল সার্জন, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বরাবর নির্দেশনার পাশাপাশি দেশের প্রতিটি হাসপাতালে পর্যাপ্ত সংখ্যক এনএসওয়ান পরীক্ষার কিট সরবরাহ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীর চিকিৎসার পাশাপাশি রোগীদের জন্য দিনের বেলায় মশারি এবং চিকিৎসার জন্য সব প্রস্তুতি রাখার জন্যও বলা হয়েছে। যাতে কেউ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলে তার থেকে এডিস মশার মাধ্যমে যেন অন্য রোগীরা আক্রান্ত না হয়।

তিনি আরও বলেন, নিকটস্থ হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বরের পরীক্ষা করানোর পরে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎসা নেওয়া প্রয়োজন। যদি প্রয়োজন হয় তবে স্বাস্থ্য অধিদফতরের হটলাইনে যোগাযোগ করতে পারে যে কেউ।